অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

শেখ হাসিনা ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে জনকল্যাণমূলক বলে বর্ণনা করেছেন


বিভিন্ন গবেষণা সংস্থা ও বিরোধীদের সমালোচনার মুখে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটকে জনকল্যাণমূলক বলে বর্ণনা করেছেন। ঢাকায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাজেট-পরবর্তী এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।
গবেষণা প্রতিষ্ঠান সিপিডি সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছিল, দেশের মধ্যবিত্ত বা নিম্ন মধ্যবিত্তের মানুষ নয়, যারা ধনী এবং অর্থনৈতিক অপশাসনের সুবিধাভোগী তারাই নতুন বাজেট থেকে সুবিধা পাবে। এর জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে কিছু লোক থাকে, যাদের একটা মানসিক অসুস্থতা থাকে। তাদের কিছুই ভালো লাগে না। আপনি যত ভালো কাজই করেন, তারা কোনো কিছুতেই ভালো খুঁজে পায় না।
প্রথা অনুযায়ী অর্থমন্ত্রীই বাজেট-পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন। তবে এবার অর্থমন্ত্রী আ. হ. ম. মুস্তফা কামাল অসুস্থ থাকায় প্রধানমন্ত্রী সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন।
ব্যাংকের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার প্রতি জোর দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেক বেসরকারি ব্যাংক এটা মানছে না। এটা মেনে চলতে হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে ৩ কোটি লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। এ নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কর্মসংস্থান মানে কেবল চাকরি নয়। ১৬ কোটি মানুষকে চাকরি দেয়া সম্ভব নয়।
বাজেটে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ রাখা নিয়েও সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, তাদের টাকাটাতো স্ট্রিমলাইনে আনার সুযোগ দিতে হবে।
ঋণ খেলাপি কালচার প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পত্রিকার মালিক এবং টিভি মালিকরা ঋণ নিয়ে ফেরত দিচ্ছেন না। এটাও বাস্তবতা।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশকে উন্নতির সোপানে পৌঁছে দিতে তার সরকার কাজ করছে। বাজেটে উল্লেখিত সোনালী যুদ্ধের ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে তিনি বলেন, দেশকে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ করে গড়ে তোলার যে যুদ্ধ সেটাই সোনালী যুদ্ধ।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:12 0:00

XS
SM
MD
LG