অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফ্রিকায় করোনায় ৪ কোটি ৪০ লক্ষ লোক সংক্রমিত হতে পারে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা


ইরানে আজ খুব ভোরে ভূমিকম্পের কারণে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে দেশটির লড়াই এক নতুন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হলো। করোনাভাইরাসের প্রতিরোধক নিয়ম অমান্য করেই আজ ভোর বেলায় কোন রকম শারীরিক দূরত্ব ছাড়াই হাজার হাজার লোক তেহরানের রাস্তায় নেমে আসে। রয়টার্স বলছে এই ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৫.১ এবং অন্তত দু'জন এতে মারা গেছে।

ওদিকে অস্ট্রেলিয়া আজ ঘোষণা করেছে যে তারা তিন ধাপে আস্তে আস্তে সব কিছু খুলে দেবে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের একজন ব্যক্তিগত কর্মচারি কভিড ১৯ এ আক্রান্ত হবার পর হোয়াইট হাউজ ঘোষণা করেছে যে প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স প্রতিদিনই করোনাভাইরাসের জন্য নিজেদের পরীক্ষা করাবেন। এর আগে তাঁরা সপ্তায় একবার করে পরীক্ষা করাতেন। যুক্তরাষ্ট্রে আজ সরকারি ভাবে বেকারত্বের সংখ্যা প্রকাশ করা হবে। অর্থনীতিবিদরা অনুমান করছেন যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের পর লক্ষ লক্ষ মানুষ চাকরি হারানোর কারণে বেকারত্বের হার ১৬ শতাংশ হতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে আফ্রিকায় করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করা না গেলে সেখানে চার কোটি চল্লিশ লক্ষ লোক এই রোগে সংক্রমিত হতে পারে এবং এতে উনিশ লক্ষ লোক মারা যেতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার একটি প্রতিবেদনে আফ্রিকার ৪৭টি দেশ সম্পর্কে বলা হয় যে, সেখানে এই প্রথম বছর সংক্রমণের হার কম হতে পারে, কিন্তু কভিড ১৯ দীর্ঘ সময় ধরে চলতে পারে। জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুয়েতেরেস বলেছেন যে, বিশ্বের দরিদ্রতম দেশগুলোকে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাহায্য করতে তারা বর্ধিত সাহায্যের আবেদন করেছেন। এর জন্যে প্রয়োজন পড়বে ৬৭০ কোটি ডলার। গতকালই বিশ্ব ব্যাংক ইকুয়েডারকে জরুরি ঋণ হিসেবে ৫০ কোটি ৬০ লক্ষ ডলার বরাদ্দ করেছে। এর আগেই আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল ৬৪ কোটি তিরিশ লক্ষ ডলার অনুমোদন করে। দেশটি করোনা ভাইরাসে ল্যাটিন আমেরিকায় সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত হয়েছে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের প্রধান গতকালই সেনেটের কমিটিকে জানিয়েছেন যে তাঁর দপ্তর, এ বছর গ্রীস্মকালের শেষের দিকে কোটি কোটি লোকের এই রোগ পরীক্ষার লক্ষ্যে প্রযুক্তি আবিস্কার ও বিতরণের জন্যে বেসরকারি শিল্প প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে একত্রে কাজ করবে।

স্বাস্থ্য বিষয়ক কোন কোন বিশেষজ্ঞ বলছেন যে, ফ্লু মৌসুম শুরু হবার আগে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ যদি কমে না আসে কিংবা কভিড ১৯ আরেকবার মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে, তা হলে তা স্বাস্থ্য ব্যবস্থার জন্য একটা বড় রকমের হুমকি হয়ে দাঁড়াবে।

XS
SM
MD
LG