অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশে এই মুহুর্তে হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন ২৯৮৩৯ জন


করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে অঘোষিত লকডাউনে বাংলাদেশ কার্যত অচল। রাজধানী ঢাকা পরিণত হয়েছে বিচ্ছিন্ন এক দ্বীপে। রাস্তা ঘাট ফাঁকা। জন-কোলাহল আগেই থেমে গেছে। সবাই যার যার বাসায়। প্রয়োজন ছাড়া কেউ রাস্তায় বের হচ্ছে না। জেলা-উপজেলার শহর-গ্রামে একই অবস্থা। গণপরিবহন বন্ধ। উড়ছে না বিমান। ট্রেনের চাকাও বন্ধ। বিপনী-বিতানগুলোতে তালা ঝুলছে। কাঁচাবাজারগুলো চালু থাকলেও ব্যাপক দুরত্বে দাঁড়িয়ে লোকজন জিনিসপত্র কিনছে। মেডিসিনের দোকানেও তেমন ভিড় নেই। সেনাবাহিনী মাঠে রয়েছে। পুলিশ-র‌্যাব সক্রিয়। লক ডাউনের প্রথম দিনে কিছুটা বল প্রয়োগ করতে হয়েছিল। সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে সবাই চলে গেছে নিরাপদ আশ্রয়ে। দিনটি শুক্রবার। এমনিতেই ছুটি থাকে। এর মধ্যে আতঙ্কে মসজিদগুলোও ফাঁকা। জুমার আগে মাইকিং করে মসজিদে না যেতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

করোনা বিষয়ক সরকারের মূখপাত্র ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় দুইজন চিকিৎসকসহ চার জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এক ভার্চুয়াল ব্রিফিং-এ মুখপাত্র বলেন, নতুন আক্রান্ত চার জনকে নিয়ে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৪৮ এ। তিনি জানান এই মুহুর্তে হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন ২৯৮৩৯ জন। নোয়াখালীতে এক যুৃবকের মৃত্যুর পর ভবন ঘিরে রেখেছে পুলিশ।

রপ্তানিমুখি নিট পোশাক প্রস্তুতকারীদের সংগঠন বিকেএমইএ তাদের অধীনে ২২৮৩ টি কারখানায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। প্রায় ২৫ লাখ শ্রমিক এই কারখানাগুলোতে কর্মরত। কারখানা ছুটির সময়ে শ্রমিকরা যেন নতুন কোন গন্তব্যে না গিয়ে নিজ নিজ অবস্থানে থাকে সে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। গার্মেন্টস কারখানায়ও ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। বৃটিশ হাই কমিশন তার নাগরিকদের বাংলাদেশ ছাড়তে বলেছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামকে কোয়ারেন্টিন সেন্টারের জন্য ছেড়ে দিয়েছে। করোনায় সংবাদপত্রেও বড় ধরণের ধাক্কা লেগেছে। ভেঙে পড়েছে বিপণন ব্যবস্থা। এই অবস্থায় দেশের প্রথম বাংলা ট্যাবলয়েড মানবজমিন প্রিন্ট সংস্করণ বন্ধ ঘোষণা করেছে।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:50 0:00



XS
SM
MD
LG