অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশে করোনা আক্রান্ত ১৮৩৮, ঢাকাতেই ৬০৮ জন


বাংলাদেশে করোনায় কাবু হয়ে পড়েছে রাজধানী ঢাকা। সারাদেশে আক্রান্ত ১ হাজার ৮৩৮ জনের মধ্যে ৬০৮ জনই ঢাকার। এর পরে রয়েছে নারায়ণগঞ্জ। বিশ শতাংশ আক্রান্ত হয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলায়। ঢাকায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত মিরপুরে। এখন পর্যন্ত সেখানে ৪৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। পুরনো ঢাকার ওয়ারীতে আক্রান্ত হয়েছেন ২৭ জন। শুক্রবার দুপুরে অনলাইন ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন, গত ২৪ ঘন্টায় ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৭৫ জন। ৮ই মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। প্রতিদিনই মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, ৬৪ টি জেলার মধ্যে ৪০ জেলায় করোনা ছড়িয়ে পড়েছে। ঢাকায় যারা আক্রান্ত হয়েছেন তাদের মধ্যে ৬৮ ভাগের বয়স একুশ থেকে পঞ্চাশের মধ্যে। গত ২৪ ঘন্টায় ২ হাজার ১৯০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে ২৬৬ জনের শরীরে করোনার আলামত পাওয়া যায়। কিছু এলাকা বাদে বেশীরভাগ এলাকাই এখন করোনা কবলিত। মিডিয়া পল্লী হিসেবে খ্যাত কাওরান বাজারের একটি অংশ লকডাউন করা হয়েছে। সেখানে দুই জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে একজন কাঁচামাল ব্যবসায়ী।

ওদিকে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে আগামীকাল শনিবার জাতীয় সংসদের অধিবেশন বসছে। করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতায় এই অধিবেশন হবে ইতিহাসের সবচেয়ে সংক্ষিপ্ততম। আধা ঘন্টা থেকে এক ঘণ্টার মধ্যে যাবতীয় কার্যক্রম শেষ হবে এমনটাই বলা হচ্ছে। ঢাকার বাইরের এমপিদের না আসতে বলা হয়েছে। সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে অধিবেশনে উপস্থিত হবেন এমপিরা। সংসদের গেটে এমপিদের শরীরের তাপমাত্রা মাপা হবে। অপেক্ষাকৃত বয়স্ক এমপিদের উপস্থিত না থাকতে বলা হয়েছে। সাংবাদিকদের উপস্থিতি নিরুতসাহিত করা হয়েছে। বলা হয়েছে, সংসদ টেলিভিশন থেকে আপনারা সংবাদ সংগ্রহ করুন। সংসদে আসার প্রয়োজন নেই।

বিজিএমইএ’র প্রেসিডেন্ট রুবানা হক জানিয়েছেন, গার্মেন্টস কারখানা আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২৬শে এপ্রিল খুলছে না। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করার পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

XS
SM
MD
LG