অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

যুক্তরাষ্ট্র ও তাইওয়ানের শীর্ষ স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা টেলি কনফারেন্স করেছেন


কভিড নাইন্টিন মোকাবিলায় একতাবদ্ধ ভাবে কাজ করে যেতে এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় তাইওয়ানের অংশগ্রহণ নিয়ে আলোচনা করতে যুক্তরাষ্ট্র ও তাইওয়ানের শীর্ষ স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা সম্প্রতি একটি ব্যতিক্রমী টেলি-কনফারেন্সে করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অ্যালেক্স আজার তাইওয়ানকে ধন্যবাদ জানান, করেনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তাদের অভিজ্ঞতা এবং সুত্রগুলো ভাগ করে নেয়ার প্রচষ্টার জন্য।

তাইওয়ান বিস্ময়কর ভাবে এই করোনাভাইরাস সংক্রমণের সংখ্যা মাত্র ৪২৯ জন এবং এতে প্রাণহানির সংখ্যা ৬ জনে সীমিত রাখতে সফল হয়েছে। তবে তাইওয়ান জাতিসংঘ কিংবা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কোনটারই সদস্য নয় কারণ চীন এতে বিরোধীতা করে আসছে। চীন তাইওয়ানকে সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকার করতে অস্বীকৃতি জানিয়ে আসছে। তাইওয়ান বলছে যে, বিচ্ছিন্নতাই COVID-19 এর বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী লড়াইয়ে তার সক্ষমতা সম্পর্কে চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছিল।

তাইওয়ানের স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এক বিবৃতিতে বলা হয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী চেন চুং, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থায় তাইওয়ানের অংশ গ্রহণের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের শক্ত সমর্থনের জন্য আজারকে ধন্যবাদ জানান। ঐ বিবৃতিতে আরো বলা হয় যে, আজার এটি আবার নিশ্চিত করেছেন যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে তাইওয়ানের অংশগ্রহণকে সম্প্রসারিত করতে যুক্তরাষ্ট্র অব্যাহত ভাবে শক্ত সমর্থন জানিয়ে আসছে।

স্বাস্থ্য বিভাগের এই দু'জন শীর্ষ কর্মকর্তার মধ্যকার এই ফোনালাপ হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র ও তাইওয়ানের মধ্যে সহযোগিতার সর্বসাম্প্রতিক দৃষ্টান্ত। এর আগে গত মাসেই COVID-19 এর সংক্রমণ রোধে একত্রে কাজ করার ব্যাপারে তারা এক যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করে। তবে তাইওয়ানে আমেরিকান ইনস্টিটিউটের সাবেক পরিচালক এবং হংকংয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কনসাল জেনারেল স্টিভ ইয়াং বলেছেন, এ জাতীয় সহযোগিতা সত্ত্বেও তাইওয়ান বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সদস্যতা পাবে না এবং দীর্ঘমেয়াদি তেমন কিছু হবে না কারণ চীনের অনেক বেশি প্রভাব রয়েছে।

XS
SM
MD
LG