অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

অপরাধী যেই হোক তাকে শাস্তি পেতেই হবে: শেখ হাসিনা


আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসের এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, অপরাধী যেই হোক শাস্তি তাকে পেতেই হবে। তার মতে, আমাদের সব থেকে যেটা প্রয়োজন মানবাধিকার রক্ষা করার জন্য আইনের শাসন নিশ্চিত করা। নির্যাতিত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রসঙ্গ তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যাকারীদের দায়মুক্তি দিতে ১৯৭৫ সালে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারির প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, হত্যাকারীরা দম্ভ করে বলতো তাদের কেউ বিচার করতে পারবে না। কারণ তাদের দায়মুক্তি দেয়া হয়েছিল। শেখ হাসিনা বলেন, আমার মায়ের কি অপরাধ ছিল? দুই ভাইয়েরইবা কি অপরাধ? তারা তো মুক্তিযোদ্ধা ছিল। দশ বছরের রাসেলের কি অপরাধ ছিল? দায়মুক্তির পর হত্যাকারীদের পুরস্কৃত করা হয়। দেয়া হয় তাদের রাজনীতি করার সুযোগ। শুধু কি তাই, ৯৬ সালের ১৫ই ফেব্রুয়ারি ভোট চুরি করে দুইজন খুনিকে সংসদ সদস্য করা হয়। এক খুনিকে বিরোধী দলের নেতার চেয়ারে বসানো হয়। আরেকজনকে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী করা হয়। প্রধানমন্ত্রী বলেন, অন্যায়-অবিচার যারা প্রশ্রয় দেয় সেই দেশে বার বার মানবাধিকার লঙ্ঘন হবে- এটাই স্বাভাবিক।

ওদিকে, বাংলাদেশে মানবাধিকার বলতে কিছুই নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। নয়াপল্টনে এক সংবাদ সম্মেলনে ফকরুল বলেন, কথা ছিল মানবাধিকার দিবস উপলক্ষ্যে রাজপথে র‌্যালি হবে। কিন্তু সরকার অনুমতি দেয়নি।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:35 0:00
সরাসরি লিংক



XS
SM
MD
LG