অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বুলবুল মোকাবেলায় চট্টগ্রাম বিমান বন্দর ও বন্দরে অপারেশনাল কার্যক্রম বন্ধ


সুপার সাইক্লোনে রূপ নেয়া ঘর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবেলায় ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার কাজে জড়িত সরকারি কর্মকর্তাদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। ঘর্নিঝড়ের প্রভাবে সাগর উত্তাল থাকায় বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত দেশী-বিদেশী জাহাজকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম বন্দরের চেয়ারম্যান কমডোর জুলফিকার আজিজ। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বন্দরের কার্যক্রম।

এদিকে শনিবার বিকেল ৪টা থেকে রোববার সকাল ৬টা পর্যন্ত বন্ধ করে দেয়া হয়েছে চট্টগ্রাম শাহ আমনত আর্ন্তজাতিক বিমান বন্দরে সব ধরনের অপারেশনাল কার্যক্রম।

উপকূলীয় এলাকার লোকজনকে ৪৮৯টি আশ্রয় কেন্দ্রসহ নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেয়ার কথা জানিয়েছেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক ইলিয়াছ হোসেন।

এছাড়া, প্রস্তুত রাখা হয়েছে ২৮৪টি মেডিক্যাল টিম। জেলা প্রশাসন, সিটি কর্পোরেশন, পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম। পরিস্থিতি মোকাবেলায় এলাকায় এলাকায় মাইকিং করা হচ্ছে। ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজারে ২৯টি ইউনিটকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সম্ভাব্য ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে দফায় দফায় বৈঠক করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রস্তুত থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এদিকে, ঘর্নিঝড়ের প্রভাবে সকাল থেকে চট্টগ্রামে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি এবং ঝড়ো হাওয়া বইছে।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:51 0:00

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর প্রভাবে কক্সবাজারে সকাল থেকেই ছিল গুমোট আবহাওয়া। সেই সাথে আতংকও ছিল উপকূলের অধিবাসী আর ক্যাম্পে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের। দুপুরের পর থেকে বৃষ্টি এবং দমকা হাওয়া কিছুটা বাড়লেও; আতংক কিছুটা কমেছে। কারণ আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে জানানো হয়েছে, কক্সবাজারে বুলবুল সহনীয় পর্যায়ে থাকতে পারে। এরপরও আতংক কাটেনি সেন্টমার্টিন দ্বীপে আটকে পড়া ১২০০ পর্যটকের।

please wait

No media source currently available

0:00 0:00:55 0:00


XS
SM
MD
LG