অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাইসাইকেলের চাকায় বিদ্যুৎ। চলবে লাইট, ফ্যান, টিভি, পানির পাম্প!


তবে স্বল্প খরচে বাইসাইকেলের চাকা ঘুরিয়ে উৎপন্ন বিদ্যুৎ থেকে বৈদ্যুতিক লাইট, ফ্যান, টিভি এমনকি পানি তোলার পাম্প চলবে।

করোনাভাইরাসের নেতিবাচক প্রভাবের কথা কারও অজানা নয়। গৃহবন্দি অবস্থায় যারা সময় কাটাচ্ছেন তাদের মধ্যে শিক্ষার্থীদের সংখ্যাই বেশি। করোনাভাইরাসের কারণে চার মাসের বেশি সময় বন্ধ রয়েছে দেশের শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানগুলি। কিছু শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান অন-লাইন এ তাদের শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন বলে শিক্ষার্থীদের বাসা থেকে বাইরে যেতে হচ্ছে না। এই সময়টা অনেকেই নানান ধরনের সৃজনশীল কাজে ব্যয় করছেন, পাচ্ছেন সফলতাও।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি) রসায়ন বিভাগের শিক্ষার্থী রানা মজুমদার। বন্ধের সময়টা অযথা ঘরে বসে না থেকে সাইকেলের চাকার গতিশক্তির মাধ্যমে চম্বুকক্ষেত্র থেকে বিদ্যুৎ উৎপন্ন করে আলোচনায় তিনি । যদিও বাইসাইকেলের চাকা ঘুরিয়ে বিদ্যুৎ উৎপন্ন হওয়ার কথা নতুন নয়। তবে স্বল্প খরচে বাইসাইকেলের চাকা ঘুরিয়ে উৎপন্ন বিদ্যুৎ থেকে বৈদ্যুতিক লাইট, ফ্যান, টিভি এমনকি পানি তোলার পাম্প চলবে বলে যে দাবি তিনি করেছেন, স্বল্প খরচে তা সম্ভব হলে সেটা সুখবর। “ছোটবেলা থেকেই বিদ্যুৎ ও বৈদ্যুতিক বিভিন্ন বিষয়গুলির প্রতি খুব আগ্রহী ছিলাম। নিজ কৌশলে বৈদ্যুতিক বাতি জ্বালানো, বৈদ্যুতিক পাখা বানানো, খেলনা গাড়ি থেকে মটর বের করে সেটা থেকে গবেষণা ইত্যাদি কাজে আমার শৈশব-কৌশর কেটেছে। ঐ সময় থেকে এখন পর্যন্ত বিদ্যুৎ ও বৈদ্যুতিক বিভিন্ন বিষয়গুলির প্রতি এক ধরনের ভালোলাগা কাজ করতো, এখনও করে। পড়ালেখা ও টিউশনির কারনে আগের মত কাজ করার সময় না পেলেও করোনা ভাইরাসের কারনে দীর্ঘদিন বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ। এই অবসর সময়টা কাজে লাগাতে চেষ্টা করলাম। ছোটবেলায় যখন মোটর দিয়ে পাখা বানাতাম তখন একটা কথাই শুধু মাথায় ঘুরতো," বিদ্যুৎ এর সাহায্যে মটর ঘুরলে, মটর ঘুরালে বিদ্যুৎ উৎপন্ন হবে কি? সেই চিন্তাটাকে এখন বাস্তবে পরিণত করলাম” বললেন রানা। তিনি আরো বললেন, সাইকেলের চাকা থেকে বিদ্যুৎ উৎপন্ন করার যন্ত্র অনেক আগে আবিষ্কৃত হয়েছে। তবে সেগুলো থেকে আমার আবিষ্কার ভিন্ন। বর্তমানে বাংলাদেশে উৎপাদিত বিদ্যুৎ দিয়ে দেশের চাহিদা মেটানো সম্ভব হচ্ছে না। লোডশেডিং হলে সাইকেল থেকে উৎপন্ন বিদ্যুতের মাধ্যমে একটি পরিবারের চাহিদা মেটানো সম্ভব হবে বলে দাবি এই তরুণ শিক্ষার্থীর। এছাড়া যেসব এলাকায় এখনও বিদ্যুৎ পৌঁছায়নি সেখানে এই সাইকেল ডায়নামো ব্যবহার করা যাবে বলেও জানান তিনি। পৃষ্ঠপোষকতা পেলে বড় পরিসরে এই উদ্ভাবন নিয়ে কাজ করতে চান রানা মজুমদার। এছাড়াও, দেশ ও মানব কল্যাণে আগামীতেও কাজ করে যাবার স্বপ্ন দেখেন এই তরুণ।

XS
SM
MD
LG