অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আদালতে জঙ্গির মাথায় আইএস টুপি রহস্যের এখনও কুল-কিনারা হয়নি


আদালতে জঙ্গির মাথায় আইএস টুপি রহস্যের এখনও কুল-কিনারা হয়নি। পুলিশ কিংবা কারা কর্তৃপক্ষ কেউই এ দায়িত্ব নিচ্ছেন না। দুটি তদন্ত কমিটির রিপোর্ট সম্পূর্ণ আলাদা। বিষয়টি গড়িয়েছে উচ্চ আদালতে।

বুধবার চাঞ্চল্যকর হলি আর্টিজান মামলার রায় ঘোষণার পর মৃত্যু দ-প্রাপ্ত দুই আসামীর মাথায় আইএস টুপি পরা নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। গঠিত হয় তদন্ত কমিটি। পুলিশের তদন্ত কমিটির রিপোর্টে বলা হয়েছে, কারাগার থেকেই পকেটে করে আইএস-এর টুপি এনেছিল জঙ্গিরা। কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কারাগার থেকে নয়Ñ টুপি বরং এজলাস চত্বরেই কারো কাছ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। কারণ কারাগার থেকে ওই টুপি সংগ্রহ করার কোন সুযোগ নেই। এই পটভূমিতে উচ্চ আদালত অনেকটা বিস্ময় প্রকাশ করেন।

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের এক মামলার শুনানির পর পত্রিকার প্রতিবেদন ও আইএস নিয়ে কাজ করা আইনজীবীর নিরাপত্তা প্রসঙ্গে আদালতের তরফে বলা হয়, এতো দেখছি সর্ষের ভেতরে ভূত। আইনজীবী জেড আই খান পান্না বলেন, পুলিশ ও কারা কর্তৃপক্ষের বক্তব্য থেকে প্রশ্ন করা স্বাভাবিকÑ এই টুপি আসলো কোত্থেকে? ফেরেশতা নাকি শয়তান সরবরাহ করেছে। হাইকোর্ট বলেন, মানবাধিকার কর্মীদের বুকে সাহস নিয়ে থাকতে হবে।

ওদিকে পুলিশের তদন্ত কমিটির প্রধান মাহবুব আলম বলেছেন, প্রাথমিক তদন্তে জানতে পেরেছি কারাগার থেকেই পকেটে ভরে আদালত প্রাঙ্গনে এসেছিল জঙ্গিরা। রায় ঘোষণার সময় প্রথমে উল্টো করে পড়লেও পরে তা ঠিক করে পড়ে নেয় দুই জঙ্গি। কারা অধিদপ্তরের পক্ষে টিপু সুলতান বলেন, কারা বিধি অনুযায়ী কোন আসামীকে কারাগার থেকে বের করে আদালতে নেয়ার সময় বা প্রবেশের সময় তল্লাশি করা হয়। তদন্ত করে দেখা গেছে, হলি আর্টিজান মামলার রায়ের দিনেও আসামীদের তল্লাশি করা হয়। এ সময় জঙ্গিদের কাছে কোন ধরনের টুপির অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:26 0:00



XS
SM
MD
LG