অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশে ধর্ষণের সঙ্গে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনা যাচ্ছে না - মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন


ধর্ষণের সঙ্গে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনা যাচ্ছে না

বাংলাদেশে ধর্ষণ জনিত বিভিন্ন অপরাধের জন্য ধর্ষণকারীদের দোষারোপ না করে এক শ্রেণির মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিকটিমদের ব্লেইম করার প্রবণতায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বেসরকারি সংগঠন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন। 

বাংলাদেশে ধর্ষণ জনিত বিভিন্ন অপরাধের জন্য ধর্ষণকারীদের দোষারোপ না করে এক শ্রেণির মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিকটিমদের ব্লেইম করার প্রবণতায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে বেসরকারি সংগঠন মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন।

সোমবার এক বিবৃতিতে সংগঠনটি বলেছে তারা মনে করে একটার পর একটা নারী ও শিশু ধর্ষণের ঘটনায় দেশবাসীকে খুবই ব্যথিত করছে এবং উদ্বেগের মধ্যে ফেলেছে। বিভিন্ন ধরনের ক্ষমতা বলয়ের কারণে ধর্ষণের সঙ্গে জড়িতদের অনেককেই বিচারের আওতায় আনা যাচ্ছে না বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

ধর্ষণের ঘটনার দ্রুত বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি না হওয়ায় ধর্ষণের ঘটনা না থেমে বরং বেড়েই চলেছে বলে উল্লেখ করে বিবৃতিতে সংস্থাটি সকল ধর্ষণ মামলার দ্রুত বিচারের নিশ্চয়তার দাবি জানিয়েছে।

সম্প্রতি কলাবাগানে একজন শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ, ধর্ষণের আগে নির্যাতন এবং নিহত মেয়ে, তার স্কুল ও পরিবারের বিরুদ্ধে নানাধরনের অভিযোগ আনায় সংস্থাটি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছে ধর্ষণের শিকার নারী ও শিশুকে দোষারোপ করার ফলে প্রকৃত দোষীরা আস্কারা পায় এবং এসব কাজে তারা আরও উৎসাহিত বোধ করে। এক শ্রেণির মানুষের এহেন কার্যকলাপের বিষয়ে ভয়েস অফ অ্যামেরিকার তরফে বিশিষ্ট মানবাধিকার কর্মী এডভোকেট জিয়া হাবিবের কাছে তাঁর প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ধরনের বক্তব্য যারা দিচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে কোঠর আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে।

মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন বলেছে পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে যে বছরের পর বছর শিশু ও নারী নির্যাতন এবং ধর্ষণের ঘটনা বাড়ছেই এমনকি করোনা চলাকালীন সাধারণ ছুটির সময়েও নারী ও শিশুর প্রতি নির্যাতন বিশেষ করে পারিবারিক নির্যাতন থেমে ছিল না। এর রাশ এখনই টেনে না ধরলে পরিস্থিতি নাগালের বাইরে চলে যেতে পারে বলে সংস্থাটি আশঙ্কা প্রকাশ করেছে।


XS
SM
MD
LG