অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব-যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের বৈঠক


বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক ও ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের ঘণ্টাব্যাপী বৈঠক নিয়ে রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক মহলে কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে। রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবনে অনুষ্ঠিত এই আকস্মিক বৈঠক সম্পর্কে কোন মহল থেকেই স্পষ্ট কিছু জানানো হয়নি। শুধু রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিক্যাট কোন প্রশ্ন না করার শর্তে সাংবাদিকদের বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক গতকাল যেমন ছিল তেমনই রয়েছে। ঢাকার বিদেশ মন্ত্রণালয় থেকে এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করা হয়নি।

সাম্প্রতিককালে বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও আসন্ন নির্বাচন নিয়ে রাষ্ট্রদূত কিছু মন্তব্য করেন। যা নিয়ে সরকারি মহলে প্রতিক্রিয়া হয়। বিশেষ করে খুলনা ও গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে রাষ্ট্রদূতের মূল্যায়নে শাসক মহলে প্রতিক্রিয়া হয়। নির্বাচনে বেশ কিছু অনিয়মের কথা সংবাদ মাধ্যমের সামনে তুলে ধরেছিলেন। রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন দেখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। এরই জেরে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় এক ফেসবুক স্ট্যাটাসে রাষ্ট্রদূতের কড়া সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস বিএনপি'র মুখপাত্রে পরিণত হয়েছে। রাষ্ট্রদূত যা বলছেন তা স্টেট ডিপার্টমেন্টের বক্তব্য নয়।

একদিন পরেই স্টেট ডিপার্টমেন্টের একজন মুখপাত্র বলেন, রাষ্ট্রদূত বার্নিকাট যা বলেছেন তা তার নিজের নয়। স্টেট ডিপার্টমেন্টের অবস্থানই তিনি তুলে ধরেছেন।

বুধবারের আলোচিত বৈঠকে রাষ্ট্রদূতকে সরকারের অবস্থান তুলে ধরার কোন বার্তা দেয়া হতে পারে- এমনটাই ধারণা করছেন কেউ কেউ। ওদিকে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক একটি বৈঠকে যোগ দিতে এ মাসেই ওয়াশিংটন যাচ্ছেন।

please wait

No media source currently available

0:00 0:00:59 0:00

XS
SM
MD
LG