অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

করোনা মহামারির কারণে মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত বাংলাদেশী কর্মীদের চাকরির ক্ষেত্রে অনিশ্চয়তা


করোনা মহামারির কারণে বিশ্ব ব্যাপী যে অর্থনৈতিক অস্থিরতার সৃষ্টি হয়েছে তার ফলে বিদেশে বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত বাংলাদেশী কর্মীদের চাকরির ক্ষেত্রে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে।

প্রবাসী বাংলাদেশী কর্মীদের নিয়ে কাজ করা সংগঠন গুলোর দেয়া তথ্য মতে করোনাকালে চাকরি হারিয়ে এযাবত মধ্যপ্রাচ্য থেক দেশে ফিরেছেন প্রায় ২৪ হাজার প্রবাসী কর্মী। এছাড়া, ছুটিতে দেশে বেড়াতে আসা প্রায় দেড় থেকে দুই লাখ প্রবাসী বাংলাদেশী কর্মী করোনা মহামারির কার বিমান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ায় কাজে ফিরতে পারেননি। এমনই এক পরিস্থিতিতে কুয়েতের গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে দেশটির সরকার অভিবাসীদের সংখ্যা কমিয়ে আনতে একটি প্রবাসী কোটা আইনের খসরা প্রণয়ন করেছে যাতে বাংলাদেশী অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য মাত্র ৩ ভাগ কোটা প্রস্তাব করা হয়েছে। খবরে বলা হয়েছে কুয়েতের বর্তমানে মোট জনসংখ্যা ৪৩ লাখ যার মধ্যে ৩০ লাখ অভিবাসী রয়েছেন অর্থাৎ মোট জনসংখ্যার প্রায় ৭০ ভাগই অভিবাসী। কুয়েত সরকার সম্প্রতি উদ্যোগ নিয়েছে অভিবাসীর সংখ্যা পর্যায়ক্রমে ৩০ শতাংশে নামিয়ে আনতে যাতে দেশটিতে জন তাত্ত্বিক ভারসাম্য রক্ষা করা যায় বলে খবরে উল্লেখ করে বলা হয় নতুন এই আইনটি ওই পরিকল্পনা বাস্তবায়নেরই অংশ।

শারিফুল হাসান
শারিফুল হাসান


বিশেষজ্ঞরা আশংকা প্রকাশ করেছেন আইনটি পাশ হলে দেশটিতে অবস্থানরত আড়াই লাখের বেশি বাংলাদেশী প্রবাসী কর্মিকে ফেরত আসতে হতে পারে।করোনা মহামারির মধ্যে বিদেশে কর্মরত প্রবাসী বাংলাদেশী কর্মীদের সার্বিক অবস্থার সম্পর্কে ব্র্যাক মাইগ্রেশান প্রোগ্রামের প্রধান শারিফুল হাসানের কাছে ভয়েস অফ অ্যামেরিকার তরফে জানতে চাইলে তিনি বলেন এখন পর্যন্ত পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক আছে।বিশেষজ্ঞরা বলেছেন করোনা উত্তরকালে বাংলাদেশী প্রবাসী কর্মীদের ক্ষেত্রে কি পরিস্থিতি দাঁড়াবে তা এখনই বলা সম্ভব নয়।

please wait

No media source currently available

0:00 0:05:07 0:00
সরাসরি লিংক


XS
SM
MD
LG