অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জার্মানি ও ইতালিতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বন্ধে চীনের প্রয়াস


বেইজিংয়ের পোতালা প্যালেসে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের ছবির কাছে জনগণ জোড়ো হয়েছেন, ২০ শে অক্টোবর, ২০২১/ছবি মার্ক সেইফেলবেইন/এপি

চীনের কূটনীতিকেরা বেইজিং সরকারের সমালোচনাকারী যেসব সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বন্ধের প্রয়াস নিয়েছেন, তাতে ইউরোপে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। জার্মানিতে তারা সফল হলেও, ইতালির একটি নগর সরকার তা প্রত্যাখ্যান করেছেI

জার্মানিতে নতুন একটি বই "শি জিনপিং,দি মোস্ট পাওয়ারফুল ম্যান ইন দি ওয়ার্ল্ড" ঘিরে এই উদ্বেগের সৃষ্টি হয়েছে, যেটি লিখেছেন প্রখ্যাত দুই সাংবাদিক, স্টার্ন ম্যাগাজিনের চীনা সংবাদদাতা, আদ্রিয়ান গেইজেস এবং দি ওয়েলট সংবাদপত্রের প্রকাশক স্টেফান আউসটI

জার্মানির দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউট বইটির প্রকাশনার সমন্বয় সাধনের লক্ষ্যে ২৭শে অক্টোবর অনলাইনে কর্মসূচি নেয়I তবে বইটির প্রকাশক মিউনিখের পাইপার ভারল্যাগ বলেন, "চীন সরকারের চাপে" স্বল্প নোটিশে সেই কর্মসূচি বাতিল করা হয়I

প্রকাশনা সংস্থা ডুসেলডর্ফ-এ কর্মরত চীনের কনসাল জেনারেল ফেং হাইয়াংকে ব্যক্তিগতভাবে জার্মানির দুইসবার্গ ও এসেনের এবং নর্থ রাইন-ওয়েস্টফালিয়া'র বিশ্ববিদ্যালের ঘটনায় হস্তক্ষেপের জন্য দোষারোপ করেI

হ্যানোভার এ লেইবনিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে যেখানে টংজি ইউনিভার্সিটি ইন সাংহাই যৌথভাবে কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউট পরিচালনা করে, তারা এমনি একটি অনুষ্ঠান জোর করে বন্ধ করে দেয়I কেন তা বন্ধ করা হলো সে ব্যাপারে বই প্রকাশক বা ইনস্টিটিউট কেউই বিস্তারিত জানান নি I

চীনের শিক্ষা মন্ত্রণালয় কতৃক চালিত এসব ইনস্টিটিউটের কার্যক্রম তাদের সাংস্কৃতিক বিকাশে বেইজিংয়ের প্রয়াস বলে ভাবা হয়I ক্লাসের পাঠ্য-কার্যক্রম, বিদেশ সফর এবং গবেষনা ভর্তুকি দিয়ে এসব ইনস্টিটিউট যেভাবে ক্যাম্পাসকে প্রভাবিত করে সে ব্যাপারে বহু পশ্চিমি দেশ এখন সতর্ক হয়ে গেছেI

ইউরোপ ও অস্ট্রেলিয়ায় বহু ডজন কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউট হয় বন্ধ হয়ে গেছে বা বন্ধ হওয়ার পথেI যুক্তরাষ্ট্র সরকারের পররাষ্ট্র দপ্তর ২০২০ সালের অগাস্ট মাসে কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউট ইউএস সেন্টারকে চীন সরকারের "বিদেশ মিশন" হিসাবে শনাক্ত করার পর, যুক্তরাষ্ট্রে অন্তত ২৯টি ইনস্টিটিউট বন্ধ করে দেয়া হয়I

XS
SM
MD
LG