অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার জন্য ই.ইউ’র উচ্চাভিলাষী প্রস্তাব


বুধবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতারা জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার জন্য এ পর্যন্ত এই সংগঠনের সব চেয়ে সমন্বিত পরিকল্পনাগুলো পেশ করেছে যার লক্ষ হচ্ছে ১৯৯০ সালের তুলনায় ২০৩০ সাল নাগাদ কার্বন নিষ্ক্রমণ ৫৫% নামিয়ে আনা । ইউরোপীয় ইউনিয়নের নির্বাহী শাখা, ইউরোপীয় কমিশন এ বিষয়টি তুলে ধরে যাতে বলা হয়েছে যে এই আইনে এই ব্লকের লক্ষ্য হবে ২০৫০ সাল নাগাদ জলবায়ু পরিবর্তনকে নিরপেক্ষ স্তরে নিয়ে আসা ।

বুধবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতারা জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলার জন্য এ পর্যন্ত এই সংগঠনের সব চেয়ে সমন্বিত পরিকল্পনাগুলো পেশ করেছে যার লক্ষ হচ্ছে ১৯৯০ সালের তুলনায় ২০৩০ সাল নাগাদ কার্বন নিষ্ক্রমণ ৫৫% নামিয়ে আনা । ইউরোপীয় ইউনিয়নের নির্বাহী শাখা, ইউরোপীয় কমিশন এ বিষয়টি তুলে ধরে যাতে বলা হয়েছে যে এই আইনে এই ব্লকের লক্ষ্য হবে ২০৫০ সাল নাগাদ জলবায়ু পরিবর্তনকে নিরপেক্ষ স্তরে নিয়ে আসা । বিষয়টি আইনত বাধ্যতামূলক করা হবে এবং জ্বালানি শক্তি ব্যবস্থায় সম্পূর্ণ পরিবর্তন আনবে।

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট ঊরসুলা ভন দের লেয়েন একটি সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন এই “Fit for 55 পরিকল্পনাটি ই.ইউ’র জলবায়ু বিষয়ক লক্ষ্য অর্জনের জন্য প্রয়োজনীয় বাস্তব ব্যবস্থা গ্রহণের পথ নির্দেশনা হিসেবে কাজ করবে। ভন দের লেয়েন বলেন,“আমাদের এই থোক প্রস্তাবের লক্ষ্য হচ্ছে প্রকৃতি রক্ষার পদক্ষেপের সঙ্গে নিষ্ক্রমণ কমিয়ে আনা এবং এই পরিবর্তনের মধ্যে কর্মসম্পাদন ও সামাজিক ভারসাম্য রক্ষা করা”।

এই সামগ্রিক প্রস্তাবের মধ্যে রয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থনীতির প্রতিটি ক্ষেত্রে Emissions Trading System কে সংযুক্ত করা যা কীনা বিভিন্ন কোম্পানিকে তাদের কার্বন নিষ্ক্রমণ কমিয়ে আনতে প্রণোদনা দেবে । এই কর্মসূচিতে তাদের উত্পাদিত কার্বনের জন্য কর ধার্য্য করা হবে। আগে যাদের ছাড় দেয়া হয়েছিল সেই বিমান ও জাহাজ চলাচল ক্ষেত্রের জ্বালানির জন্যও নতুন কর আরোপের প্রস্তাব রয়েছে। এই পরিকল্পনায় পরিবহন, উত্পাদন এবং জ্বালানি ক্ষেত্রেও কার্বনের জন্য বর্তমান কর বৃদ্ধির প্রস্তাবও রয়েছে। তা ছাড়া এই থোক প্রস্তাবের সব চেয়ে উল্লেখযোগ্য দিক হচ্ছে এই প্রথম বিদেশ থেকে আমদানিকৃত পণ্যের কার্বনের উপর কর আরোপ।

XS
SM
MD
LG