অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পালিয়ে আসা আফগানদের গ্রহণ করার জন্য ইউরোপ প্রস্তুত; কেউ কেউ শঙ্কিত


ফাইভ আইজ 'এর প্রতীকি চিত্র

যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড  গোয়েন্দা জোট  ফাইভ আইজ’এর এই সদস্য রাষ্ট্রগুলো আজ বুধবার এক কনফারেন্স  কল এ তালিবানের শাসন থেকে পালিয়ে যাওয়া আফগানদের নিরাপদ ও বৈধ পথের বিষয়ে কি  ভাবে সমন্বয় করা যায় সে সব নিয়ে আলোচনা করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া এবং নিউজিল্যান্ড গোয়েন্দা জোট ফাইভ আইজ’এর এই সদস্য রাষ্ট্রগুলো আজ বুধবার এক কনফারেন্স কল এ তালিবানের শাসন থেকে পালিয়ে যাওয়া আফগানদের নিরাপদ ও বৈধ পথের বিষয়ে কি ভাবে সমন্বয় করা যায় সে সব নিয়ে আলোচনা করেছেন।

ব্রিটিশ কর্মকর্তারা বলেন প্রধানত মনোযোগ দেওয়া হয় তাত্ক্ষণিক নিরাপত্তা এবং আফগান কর্মকর্তা ও অন্যান্যদের সামনে প্রায়োগিক চ্যালেঞ্জ নিয়ে বিশেষত যে সব অসামরিক লোকজন গত ২০ বছর ধরে আফগানিস্তানে নেটো মোতায়েন থাকার সময় পশ্চিমি নিরাপত্তা বাহিনীর সহায়তা করেছে তাদের সম্পর্কে।

এই বৈঠকের কয়েক ঘন্টা আগেই ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইম্যানুয়েল ম্যাক্রঁ, আফগানিস্তানে ফরাসি বাহিনীতে যে সব আফগান নাগরিক সহায়তা করেছেন কিংবা তাদের সঙ্গে কাজ করেছেন তাদেরকে পরিত্যাগ না করার প্রতিজ্ঞা করেন। তবে তিনি এ কথাও বলেন, ইউরোপকে , “ আশ্রয়প্রার্থী লোকজনের ঢেউ অনুমান করে নিজেদের রক্ষা করতে হবে । তিনি টেলিভিশনে দেওয়া প্রাইমটাইম ভাষণে বলেন , “ ইউরোপ একাই এই পরিস্থিতির পরিণতির ভার বহন করতে পারে না”। তাঁর বক্তব্যের সমালোচনা করেন ফ্রান্সের অধিকার গোষ্ঠীগুলো এবং বামপন্থি বিরোধী নেতারা।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী পিয়েরে ট্রুডো ম্যাক্রঁ থেকে ভিন্ন সুরে কথা বলেন। তিনি বলেন , “ কাবুল থেকে আসা হৃদয়বিদারক দৃশ্য দেখে তিনি পুরোপুরি শঙ্কিত বোধ করেছেন এবং রবিবার প্রতিজ্ঞা করেন যে তিনি অন্য মিত্রদের পাশাপাশি তাদের উদ্বার কাজ চালিয়ে যাবেন। কানাডা বলেছে তারা ২০,০০০ আফগান নাগরিককে তারা নেবে যাদের মধ্যে দোভাষীও রয়েছে যারা কানাডার বাহিনীর সঙ্গে কাজ করেছে। কানাডার অভ্যন্তরীন বিষয়ক মন্ত্রী বলেছেন যে আগামি ১২ মাসের মধ্যেই ২০,০০০ শরনার্থীদের সবাইকে নেয়ার সম্ভাবনা কম। তাই এই সময়সীমা বাড়ানো হবে।

এপ্রিল মাস থেকে অস্ট্রেলিয়া তাদের বাহিনীর সঙ্গে কাজ করেছে এমন ৪৩০ জন আফগানকে অস্ট্রেলিয়া গ্রহণ করেছে। তবে প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বুধবার বলেন তার সরকার এ বছর আফগান ভিসা প্রার্থীদের মধ্যে মাত্র ৩০০০ জনকে ভিসা দিতে পারবে।

নিউজিল্যান্ডের কর্মকর্তারা বলছেন যে সব আফগান নাগরিক নিউজিল্যান্ডের মোতায়েন সৈন্যদের সঙ্গে কাজ করেছে তাদের এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের সরিয়ে আনার চেষ্টা করবে । এদের সংখ্যা ২০০ ‘র মতো হবে।

গ্রীসের অভিবাসন মন্ত্রী বলেছেন তাঁর দেশ শরনার্থীদের ইউরোপের প্রবেশপথ হবে না, হতে পারে না। জার্মানি আভাস দিয়েছে যে তারা আফগানদের গআরহণ করবে কিন্তু সংখ্যা সুনির্দিষ্ট করে জানায়নি। ব্রিটেনের অভ্যন্তরীণ বিষয়ক মন্ত্রী প্রীতি প্যাটেল , যিনি বুধবার এই ফাইভ আইস’এর কনফারেন্স কলে সভাপতিত্ব করেন , তিনি ইউরোপীয় প্রতিবেশিদের তালিবানের কবল থেকে পালিয়ে আসা আফগানদের নিরাপদ আশ্রয় দিতে বলেছেন। তিনি ঘোষণা করেন যে ব্রিটেন ২০,০০০ আফগান শরনার্থীকে আশ্রয় দেবে।

XS
SM
MD
LG