অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

উগ্রবাদ নিয়ে বিশ্বব্যাপী উৎকন্ঠার যে কথাগুলো আমরা বার বার বলছি, সেই উগ্রবাদের সর্বসাম্প্রতিক শিকার হলো আবারও নিউ ইয়র্ক সিটি। ৯/১১ ‘র আক্রমণের তূলনায় এই হামলা হয়ত, অনেকের কাছেই সামান্য বলে মনে হতে পারে, কিন্তু মানুষের জীবন কখনই সংখ্যা দ্বারা বিবেচিত হতে পারে না । আক্রমণের শিকার সংখ্যায় যতই সামান্য হোক না কেন, আমরা জানি যে সেখানে মানুষ আক্রান্ত হয়, মানবিক অনুভূতিগুলো আহত হয় এবং সন্ত্রাসীদের মধ্যে এই অনুভূতিকে ভোঁতা করে দেওয়ার প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকে।

এই ভোঁতা অনুভূতি রয়ে গেছে এ ধরণের সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোর মধ্যে যারা মানুষকে মানুষ বলে গণ্য করে না, যারা মানুষকে ভাগ করে বিশ্বাসের ভিত্তিতে এবং এক ধরণের অন্ধত্ব দ্বারা পরিচালিত হয়। এটাকে মানসিক বৈকল্য বলা যেতে পারে, বলা যেতে পারে অপবিশ্বাসকে আঁকড়ে রাখার এক সর্বনাশী প্রক্রিয়া।

আসলে কোন রকম উগ্র মতবাদ পোষণ না করে অন্যের মতবাদকেও সমান ভাবে সম্মান দিয়ে সংলাপের মাধ্যমেও এ ধরণের সমস্যার সমাধান হতে পারে। বিশ্বের বহু সমস্যারই সমাধান পাওয়া গেছে আলোচনার মধ্য দিয়ে ।মানব সভ্যতার অগ্রগিতর পেছনে রয়েছে পারস্পরিক সংলাপ ।প্রয়োজন অনুভূতিকে “rehumanize” করার, পুনরায় মানবতাবোধকে জগ্রত করার। বলা যায় , আবার তোরা মানুষ হও সেই রকম অনুভূতিকে জাগিয়ে তুললেই উগ্রবাদের উৎকন্ঠা থেকে উত্তরণ ঘটবে এই সভ্যতার।

XS
SM
MD
LG