অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

‘গোলকিপার্স গ্লোবাল গোল চেঞ্জমেকার অ্যাওয়ার্ড-২০২১’ পেলেন বাংলাদেশের এক তরুণী  


ফাইরুজ ফাইজা বিথা

বাংলাদেশের তরুণী ফাইরুজ ফাইজা বিথার মানুষকে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা প্রদান এবং এ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির স্বীকৃতি হিসেবে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের ‘গোলকিপার্স গ্লোবাল গোল চেঞ্জমেকার অ্যাওয়ার্ড-২০২১’ পেয়েছেন।

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসনের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ও ‘মনের স্কুল’ এর সহপ্রতিষ্ঠাতা ফাইরুজ ফাইজা বিথার হচ্ছেন প্রথম কোন বাংলাদেশী যিনি এই পুরস্কারে ভূষিত হলেন। জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বা এসডিজি অর্জনে সহায়তা করছেন এমন ব্যক্তিদের বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন এই পুরস্কার দিয়ে থাকে।

গোলকিপার্সের এর ওয়েবসাইটে এ বছরের পুরষ্কার প্রাপ্তদের নাম ঘোষণা করে বলা হয়েছে বাংলাদেশের ফাইরুজ ফাইজা বিথার সমাজে পরিবর্তন আনার অনুপ্রেরণায় ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা দিয়ে এবং নেতৃত্বের জায়গায় থেকে সুস্বাস্থ্য ও মানুষের ভালো থাকার জন্য নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। এতে বলা হয় তাঁর প্রতিষ্ঠান মনের স্কুল মানুষের মানসিক স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য কাজ করে চলেছে এবং একই সাথে দেশব্যাপী মানসিক চিকিৎসার সমানাধিকার সুনিশ্চিত করার মত কাজের মাধ্যমে এসডিজি অর্জনে সহায়তার স্বীকৃতি স্বরূপ তাকে এ পুরস্কার দেয়া হয়েছে।

এ বছর আরও তিন জন এই পুরস্কার পেয়েছেন যারা হচ্ছেন জাতিসংঘের নারী শাখার সাবেক আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল এবং এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর ফুমজিলে মলাম্বো নকুকাকে, কলম্বিয়ার জেনিফার কলপাস ও লাইবেরিয়ার সাট্টা শেরিফ।

পুরস্কার ঘোষণা উপলক্ষে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের কো-চেয়ার বিল গেটস বলেন বিশ্বের সর্বত্র চলমান বৈষম্য করোনা ভাইরাস মহামারি পরিস্থিতিকে আরও খারাপ করে তুলেছে। তবে এ প্রতিকূলতার মাঝেও যে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব এ চার মহীয়সী নারী তা সম্ভব করে দেখিয়েছেন বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন তাঁদের স্বীকৃতি দিতে পেরে তাঁর সংগঠন সম্মানিত বোধ করছে।

ফাউন্ডেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মার্ক স্যুজম্যান বলেন নারীরা কীভাবে উদ্ভাবনী উপায়ে মানব সমাজ এবং বিভিন্ন দেশের পুনর্গঠনে নেতৃত্ব দিচ্ছেন এ পুরস্কারের বিজয়ীরা তাঁর জ্বলন্ত উদাহরণ। আরও সুন্দর ও বৈষম্যহীন পৃথিবী গড়তে এবং বিশ্বব্যাপী মানসিক সহযোগিতা ও সংবেদনশীলতা বাড়াতে এবারের বিজয়ীরা যে অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন তা সকলের জন্য অনুপ্রেরণা হিসাবে কাজ করবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

পুরষ্কার পাওয়ার বিষয়ে ফাইরুজ ফাইজা বিথার সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন এটা শুধু তাকেই নয় মনের স্কুলের সাথে সম্পৃক্ত সকলের জন্য অনুপ্রেরনার উৎস হিসেবে কাজ করবে। তিনি বলেন তাঁদের প্রতিষ্ঠান ২০১৮ সাল থেকে সারা দেশে প্রায় ১০ হাজার মানুষকে সরাসরি ও অনলাইনের মাধ্যমে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করেছে। তিনি বলেন এছাড়াও দেশ ব্যাপী মানসিক স্বাস্থ্যের সেবার ব্যাপারে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি এবং মানসিক স্বাস্থ্য সেবার প্রসারের জন্য প্রশিক্ষণও দিচ্ছে তাদের প্রতিষ্ঠান।

XS
SM
MD
LG