অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ফাউচির পরামর্শ: ভারতে সম্পূর্ণ লক ডাউন হোক


ভারতে প্রতিদিন কভিড ১৯ এ আক্রান্তের সংখ্যা এই প্রথম আগেকার সব রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। গত ২৪ ঘন্টায় এই রোগে নতুন করে সংক্রমিতের সংখ্যা চার লক্ষ এক হাজার নয়শ তিরানব্বই জন। জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, প্রকৃত হিসেবে এই সংখ্যা পাঁচগুণ বেশি হতে পারে। সংক্রামক ব্যাধি বিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ বিশেষজ্ঞ অ্যান্টনি ফাউচি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস সংবাদপত্রের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, “এই ভাইরাস আমাদের এটাই দেখিয়েছে যে একে ছেড়ে দিলে, এটি সমাজে বিস্ফোরণ ঘটাবে”। তিনি আরও বলেন, “গুরুতর ক্ষতি করার ব্যাপারে এই ভাইরাসের ক্ষমতাকে আপনি যদি স্বীকার না করেন, তা হলে নিজের জন্য সমস্যাই ডেকে আনবেন”।

ফাউচি ভারতে সম্পূর্ণ লকডাউনের পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, “আক্ষরিক অর্থেই লক ডাউন করুন যাতে করে এই রোগ ছড়ানো বন্ধ করা যায়। কেউই দেশকে লক ডাউনে রাখতে চায় না, কিন্তু যদি কয়েক সপ্তাহের জন্য তা করেন দেখবেন এই রোগ সংক্রমণের গতিতে এর তাৎপর্যপূর্ণ প্রভাব পড়েছে”। এদিকে ভারতের পশ্চিমাঞ্চলে একটি হাসপাতালের কভিড ১৯ ওয়ার্ডে আগুন লাগলে সেখানে ১৮ জন প্রাণ হারিয়েছে। কর্তৃপক্ষ বলছে, গুজরাত রাজ্যের ভারুচে একটি হাসপাতালের নীচের তলায় আগুন লাগলে ৩০ জন রোগিকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়। কর্মকর্তারা বলছেন, তাৎক্ষণিক ভাবে আগুন লাগার কারণ জানা যায়নি। ভারতের প্রধানমন্ত্রী এক টুইট বার্তায় হাসপাতালে অগ্নিকান্ডে প্রাণহানির জন্য দুঃখ প্রকাশ করেন।

এ দিকে ভারত তার টীকা দানের কর্মসূচী আরও সম্প্রসারিত করেছে। এখন থেকে ১৮ বছর এবং এর ঊর্ধ্ব বয়সীরা টীকা নিতে পারবেন তবে অনেক জায়গায় বলা হচ্ছে যে তাদের কাছে কোন টীকাই নেই। ভারতের ১৩০ কোটি লোকের মধ্যে মাত্র ২% লোক টীকা পেয়েছে।

XS
SM
MD
LG