অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ফোর্টহুড ঘাটির গোলাগুলির ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করছেন তদন্তকারীরা


বুধবার টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের মধ্যাঞ্চলের ফোর্ট হুড সামরিক ঘাটিতে সর্ব সাম্প্রতিক গোলাগুলির ঘটনার ব্যাপারে তদন্তকারীরা এর কারণ অনুসন্ধান করছেন। ঐ ঘটনায় একজন সৈন্য গুলি চালিয়ে আত্মহত্যা করার আগে তিন জন সহকর্মী সৈন্যকে হত্যা করেছে আরও ১৬ জন আহত হয়েছে।

কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে তদন্ত করে দেখছে যে ইরাকে ২০১১ সালে ঐ লোকটির চার মাসের দায়িত্ব পালন, এই ঘটনায় কোন প্রভাব ফেলেছে কী না তবে এখন ও তারা এর উদ্দেশ্য স্থির করতে পারেনি।

যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনী বিষয়ক মন্ত্রী জন ম্যাক হাফ, আজ যুক্তরাষ্ট্রের সেনেটকে বলেন যে ঐ বন্দুকধারী লোকটি ইরাকে সরাসরি যোদ্ধৃ বাহিনীতে ছিল না। তিনি আরও বলেন যে এই লোকটিকে গত মাসেই মনস্তাত্বিক পরীক্ষা করে দেখেন এবং তার মধ্যে সহিংসতার কোন লক্ষণ দেখা দেয়নি। তিনি আরও বলেন যে এই গুলি চালনাকারী ব্যক্তি যে কোন চরমপন্থি সংস্থা'র সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সে রকম কোন আভাষ পাওয়া যায়নি।

সামরিক বাহিনী আনুষ্ঠানিক ভাবে এই লোকটির নাম প্রকাশ করেনি তবে অন্যান্য কর্তৃপক্ষ তাকে ইভান লোপেজ বলে সনাক্ত করেছে।

ঐ ঘাঁটির কমান্ডার, লিউট্যানেন্ট জেনারেল মার্ক মিলে বুধবার রাতে জানান যে আক্রমণকারীর দিকে মিলিটারী পুলিশের এক কর্মকর্তা এগিয়ে গেলে সে তার সেমি অটোম্যাটিক পিস্টল দিয়ে নিজেকেই হত্যা করে।

মার্ক মিলি আরও বলছেন যে ঘটনার ধারাবাহিকতা এবং সময় শতকরা ১০০ ভাগ পরিস্কার নয় তবে মনে করা হচ্ছে যে সে ঐ ভবনের একটি ইউনিটে হেঁটে যায়, গুলি চালায়, একটি গাড়িতে উঠে পড়ে, গাড়ি থেকে গুলি চালায়, গাড়ি থেকে বেরিয়ে আরেকটি ভবনে প্রবেশ করে এবং আবার ও গুলি চালায়। আর তার পরই ফোর্টহুডের স্থানীয় আইন প্রযোগকারীরা ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি নেন।

মধ্য টেক্সাসের ফোর্ট হুড সেনা ঘাটিতে গোলাগুলির ঘটনায় আক্রমণকারীসহ চারজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১৬ জন। তাদেরকে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা করা হচ্ছে। ভয়েস অব আমেরিকার গ্রেগ ফ্লেকাসের রিপোর্ট থেকে শোনাচ্ছেন সেলিম হোসেন:
please wait

No media source currently available

0:00 0:01:58 0:00
সরাসরি লিংক

ফোর্ট হুড চত্তরে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে দেয়া বক্তব্যে লিউটেনেন্ট জেনারেল মার্ক মিলি Mark Milley বলেন তদন্তকারীরা নিশ্চিত হয়েছেন যে আইভান লোপেজ নামক আক্রমনকারী ঐ ঘাঁটিঁই একজন সেনা সদস্য ছিল এবং ঘটনাস্থলেই সে আত্মহত্যা করে।

মিলি বলেন ওই ঘটনায় ব্যাবহৃত পয়েন্ট ৪৫ ক্যালিবার, সেমাই অটোমেটিক পিস্তলটি, ঘাটির বাইরে থেকে কেনা হয়েছিল। তিনি বলেন গোলাগুলির ঘটনা কিভাবে ঘটেছিল তা সুনির্দিষ্টভাবে বলা যাবে তদন্তের পর; তবে যতটুকু জানা গেছে তাতে বলা যায়, ঘাতক ঠান্ডা মাথায় এ হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে।

“ধারণা করা হচ্ছে সে একটি ভবন থেকে বের হয়ে গুলী চালানো শুরু করে, একটি গাড়ীতে ঢোকে, গাড়ীর ভেতর থেকে গুলী চালায়, গাড়ী থেকে বের হয়, অপর একটি ভবনে প্রবেশ করে এবং আবারো গুলী চালায় এবং পরে নিরাপত্তা কর্মীদের সঙ্গে গুলী বিনিময় হয়”।

মিলি বলেন এর আগে আক্রমণকারীর পোষ্ট ট্রমাটিক স্ট্রেস ডিস-অর্ডার বা মানষিক বিপর্যয়ের প্রমাণ না মিললেও, তার অন্য ধরণের মানষিক অসুস্থতার চিকিৎসা চলছিলো, যা মনে করা হয়, ২০১১ সালে ইরাকে কর্মরত অবস্থার সঙ্গে সম্পর্কিত।

২০০৯ সালে ফোর্ট হুডে এক হত্যাযজ্ঞ ঘটেছিল যাতে ১৩ জন নিহত হন; আহত হন ৩০। ঘাতক মেজর নিদাল হাসান তখন নিরাপত্তাকর্মীদের গুলীতে আহত হয়েছিল এবং পরে কোমর থেকে প্যারালাইজড হন। গত বছর ঐ আক্রমন ঘটানোর দায়ে তাকে অভিযুক্ত করা হয় এবং যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়া হয়।

হাসান স্বীকার করেছে যে সে মুসলিম বিশ্বাসে অনুপ্রাণিত হয়ে ঐ আক্রমন ঘটিয়েছিল। সেই মামলায় উত্থাপিত তথ্য প্রমানাদির ভিত্তিতে প্রমাণিত হয়েছে যে সে মৌলবাদী ইসলামী নেতৃবৃন্দের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিল যারা তাকে সন্ত্রাস সংঘঠনে প্রভাবিত করে। কর্মকর্তারা জানান সাম্প্রতিক গোলাগুলির ঘটনায় সন্ত্রাসীদের সঙ্গে যোগাযোগের কোনো প্রমান এখনো মেলেনি।

প্রেসিডেন্ট ওবামা বুধবার ফোর্ট হুডের ঘটনার সূত্র খুঁজে বের করার জন্য কড়া নির্দেশ দিয়েছেন এবং বলেছেনতিনিঁ ব্যাথিত ও মর্মাহত যে ঐ ঘাঁটিতে আবারো এমন মর্মান্তিক ও হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটল।
XS
SM
MD
LG