অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তুরস্কের সাড়ে চার হাজার তুর্কি নাগরিকের জার্মানিতে আশ্রয় প্রার্থনা


তুরস্কের প্রায় সাড়ে চার হাজার নাগরিক জার্মানিতে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়েছেন। এই সংখ্যা আগের বছরের তুলনায় দ্বিগুনেরও বেশি। আশ্রয় প্রার্থীদের মধ্যে তিনজন কূটনীতিকও রয়েছেন। জুলাই মাসে ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের কারণে বিপুল সংখ্যক তুর্কি আশ্রয় প্রার্থী হয়েছেন বলে সাধারণভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

তুরস্ক সরকার ব্যর্থ অভ্যুত্থানের পর ব্যাপক ধরপাকড় শুরু করে। চাকরিচ্যুত করে হাজার হাজার নাগরিককে। দেশটিতে চরমভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে। এখনও জরুরি অবস্থা জারি রয়েছে। বিরোধী আইন প্রণেতা, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা নিগ্রহের শিকার হচ্ছেন বেশি। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে কয়েক ডজন মিডিয়া হাউজ। ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাষ্ট্র ও জাতিসংঘের তরফে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

জার্মান মিডিয়ার খবর, বার্লিন-আঙ্কারার সম্পর্কের মারাত্মক অবনতি ঘটেছে। শুক্রবার জার্মান অভিবাসন দপ্তর থেকে বলা হয়েছে, এ পর্যন্ত তারা ৪৪৩৭টি আবেদনপত্র পেয়েছেন।

জার্মান পররাষ্ট্র মন্ত্রী ফ্র্যাঙ্ক-ওয়াল্টার স্টেইনমেয়ার বলেছেন, যেসব বিজ্ঞানী, সমাজকর্মী ও সাংবাদিক চাকরিচ্যুত হয়েছেন, জার্মানিতে আশ্রয় চাইলে তাদেরকে সাদরে গ্রহণ করা হবে। তিনি বলেছেন, এটা মনে করার কোন কারণ নেই যে, নাগরিকদের আশ্রয় দেয়ার মধ্য দিয়ে জার্মানি চাইছে আঙ্কারার সঙ্গে রাজনৈতিক সঙ্কটের সমাধান করতে।

এদিকে, প্রায় ২৫ হাজার কুর্দি জার্মানিতে এরদোগান সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। লন্ডন থেকে মতিউর রহমান চৌধুরী।

please wait

No media source currently available

0:00 0:00:40 0:00

XS
SM
MD
LG