অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এশিয়া সফর এবং এশিয় দেশের সংগে অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সম্পর্ক


আমাদের আজকের হ্যালো ওয়াশিংটনের আলোচ্য বিষয় ছিল “প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এশিয়া সফর এবং এশিয় দেশের সংগে অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সম্পর্ক।”
আজকের অনুষ্ঠানে আমাদের বিশেষ অতিথি ছিলেন ইউএনডিপির মানব উন্নয়ন রিপোর্টের ডিরেক্টর যুক্তরাষ্ট্রের বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ডঃ সেলিম জাহান। যুক্তরাষ্ট্রের ম্যারিল্যান্ড থেকে যোগ দিচ্ছেন বিশ্ব ব্যাংকের প্রাক্তন কর্মকর্তা এবং বাংলাদেশের সাবেক আমলা জিয়াউদ্দিন চৌধূরী।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রথম এশিয়া সফরে বর্তমানে তিনি চীনে রয়েছেন। ইতিমধ্যে তিনি জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়া সফর শেষ করেছেন। এরপর যাবেন ফিলিপিন্সে এবং সবশেষে ভিয়েতনাম সফরের মাঝ দিয়ে তিনি এশিয়া সফরের ইতি টানবেন।
উত্তর কোরিয়ার মারাত্মক হুমকির প্রেক্ষিতে কৌশলগত দিক থেকে আমেরিকা ও ঐ অঞ্চলের জন্য এই সফর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সেই সঙ্গে আমেরিকার বাণিজ্যিক সুবিধার বিষয়টিও রয়েছে। এখানে উল্লেখ্য যে ১০ই নভেম্বর থেকে ফিলিপিন্সে শুরু হচ্ছে এশিয়ান শীর্ষ সম্মেলন। আসিয়ানের ৫০তম বর্ষপূর্তিতে প্রেসিডেন্ট ফিলিপিন্সেই থাকবেন।
ডঃ সেলিম জাহান প্রথমেই ঐ অঞ্চলের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক রাজনৈতিক ও নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট দীর্ঘদিনের সম্পর্কে নিয়ে আলোকপাত করেন।

আসিয়ান জোটের শীর্ষ সম্মেলনে প্রায় বরাবরই আমেরিকার প্রেসিডেন্ট উপস্থিত থাকেন। এবারেও প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প উপস্থিত থাকবেন এবং ধারণা করা হচ্ছে যে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনের সংগে তার সাক্ষাত হবে। এর ইতিবাচক বা নেতিবাচক কোন প্রভাবের দিকটি আলোচনা করেছেন জনাব জিয়াউদ্দিন চৌধূরী। শ্রোতারা ট্রাম্পের সফরের নানা দিক নিয়ে ইমেইল করে ও ফেইসবুকেও প্রশ্ন এবং মন্তব্য করেছেন।
শ্রোতারা যারা অনুষ্ঠান শুনেছেন এবং অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছেন তাদেরকে ধন্যবাদ।

আপনার পছন্দমত বেছে নিন

মন্তব্যগুলো দেখান

XS
SM
MD
LG