অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

করোনাভাইরাস মহামারি গোটা বিশ্বে যেন ঘৃণাকে উস্কে দিচ্ছেঃ জাতিসংঘের প্রধান আন্তোনিও গুয়েতেরেস


জাতিসংঘের প্রধান আন্তোনিও গুয়েতেরেস গতকাল সতর্ক করে দিয়েছেন যে করোনাভাইরাস মহামারি গোটা বিশ্বে যেন ঘৃণাকে উস্কে দিচ্ছে এবং এই ধারা বন্ধ করার জন্য বিশ্বব্যাপী চেষ্টা চালানোর আহ্বান জানান। তিনি বলেন এই মহামারিকে পরাস্ত করতে, আমাদের একতাবদ্ধ হতে হবে, অথচ এই মহামারির ফলে ঘৃণা, বিদেশীদের নিয়ে ভয় এবং আশংকার সুনামি দেখা দিয়েছে। তিনি বলেন অভিবাসী লোকজনকে এই সংক্রামক ব্যাধির উৎস বলে অহেতুক তাদের দোষী করা হচ্ছে এবং চিকিৎসার সুযোগ থেকে তাদের বঞ্চিত করা হচ্ছে। গুয়েতেরেস রাজনৈতিক নেতৃত্বকে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে, গণমাধ্যমকে এবং সুশীল সমাজকে এই ঘৃণার ভাইরাসের বিরুদ্ধে সমাজের প্রতিরোধ ক্ষমতাকে আরো শক্তিশালী করার জন্য এখনই সক্রিয় হতে আহ্বান জানান।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত দেশগুলোর মধ্যে বিশ্বে এখন তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইটালি, সেখানে তিরিশ হাজারের ও বেশি লোক এই রোগ সংক্রমণে প্রাণ হারিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্র এবং ব্রিটেনের পরই ইটালির স্থান। ইটালি জানিয়েছে যে গতকাল শুক্রবার সেখানে আরও ২৪৩ জন মারা গেছেন, যা আগেকার তূলনায় বেশ কম, মার্চ মাসের শেষ দিকে ইটালিতে প্রতিদিন ৯০০ লোক মারা যাচ্ছিলেন। এ দিকে স্পেনে, মাদ্রিদ এবং বার্সিলোনা জানিয়েছে যে সেখানে এবং দেশের অন্যান্য জায়গায়ও এখনও সংক্রমণের হার বেশি থাকায় তারা লকডাউন শিথিল করার পরবর্তী পর্যায়ে যাবে না। মাদ্রিদ এবং ক্যাটালনিয়া প্রদেশ দুটি, যার রাজধানী হচ্ছে বার্সিলোনা, সেখানে করোনায় সনাক্ত ব্যক্তির সংখ্যা দু লক্ষ তেইশ হাজার, যা গোটা স্পেনে সংক্রমণের প্রায় অর্ধেক।

এদিকে গোটা ইউরোপ জুড়ে বিভিন্ন দেশ করোনাভাইরাসের কারণে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ সমাপ্তির ৭৫তম বার্ষিকী বেশ নীরবেই পালন করেছে। সাধারনের জন্যে খোলামেলা অনুষ্ঠান বাতিল করা হয় এবং ইউরোপীয়দের এ দিনটি নিজের বাড়িতে বসেই ‍উদযাপন করতে বলা হয়। ব্রিটেনের রাণী এলজিাবেথ এক ব্যতিক্রমী টেলিভশিন ভাষণে, যুদ্ধ এবং করোনাভাইরাসের প্রতি আলোকপাত করেন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প এবং ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প গতকাল দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের প্রাক্তন সৈনিকদের সঙ্গে, ইউরোপে ঐ যুদ্ধ সমাপ্তির ৭৫ তম বার্ষিকী পালন করেন। তাঁরা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের স্মারক বেদীতে পুস্পাঞ্জলী অপর্ণ করেন। তাঁদের সঙ্গে ছিলেন ৯৬ থেকে ১০০ বছর বয়সী প্রাক্তন সৈনিক।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে যখন কভিড ১৯ ‘এ সংক্রমণের হার বাড়ছে, তখন জনস্বাস্থ্য বিষয়ক একটি গোষ্ঠি বলেছে, এই রোগের কারণে মাদকাসক্তি এবং আত্মহত্যায় আরও পঁচাত্তর হাজার লোক প্রাণ হারাতে পারেন। জন্স হপকিন্স ইউনিভার্সিটির হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে ৭৭ হাজারের ও বেশি লোকের প্রাণহানি ঘটেছে।

XS
SM
MD
LG