অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাইডেনের অভিষেকের আগে সশস্ত্র প্রতিবাদের আশংকা


যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল তদন্ত ব্যুরো আশংকা করছে যে, ২০শে জানুয়ারি নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের অভিষেক অনুষ্ঠানের সময়ে সম্ভাব্য সশস্ত্র প্রতিবাদ বিক্ষোভ হতে পারে আর সেই কারণে যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী সহ বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের রাজধানীগুলোতেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরালো করা হয়েছে। ৬ই জানুয়ারি প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকদের যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল দখলের রক্তাক্ত ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাকার জন্য এফ বি আই এরই মধ্যে ২৭০ জন সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে চিহ্নিত করেছে, এবং একশ' জনেরও বেশি মানুষকে গ্রেপ্তার করেছে। ভোট কারচুপির মিথ্যে বিবরণে এই অপরাধদের উস্কানি দেয়া হয়। কাউকে কাউকে সাবেক কিংবা বর্তমান সামরিক বাহিনী বা পুলিশের লোক বলে চিহ্নিত করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটনের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকছে ২৫,০০০ ন্যাশনাল গার্ড এবং অন্যান্য সংস্থার হাজার হাজার আইন প্রয়োগকারী। ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স আমেরিকানদের আশ্বস্ত করেছেন যে, অভিষেক অনুষ্ঠানটি নিরাপদ থাকবে।

এ দিকে এ নিয়েও তদন্ত অব্যাহত রয়েছে যে, খোদ কংগ্রেসেরও কোন কোন সদস্য এই আক্রমণে সহায়কের ভূমিকা পালন করেছেন কীনা। বিধায়করা এই আক্রমণের তদন্তের জন্য দ্বিদলীয় কমিশন গঠনের প্রস্তাব উত্থাপন করেছেন। প্রস্তাবিত সেই কমিশন এ রকম কিছু গুরুত্ব পূর্ণ প্রশ্নের উত্তর খতিয়ে দেখবে যে, গোয়েন্দা দপ্তর কি এ ব্যাপারে আগাম সংবাদ দিতে ব্যর্থ হয়েছিল, না কি এর সঙ্গে রাজনৈতিক কর্মকর্তারাও সম্ভবত জড়িত ছিলেন। নিরাপত্তার কারণে অভিষেক অনুষ্ঠানের মহড়া রবিবারের পরিবর্তে এখন সোমবার অনুষ্ঠিত হবে।

XS
SM
MD
LG