অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারত লকডাউন সংক্রান্ত নতুন নিয়মাবলী প্রকাশ করেছে


ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী গতকাল জাতির উদ্দেশে তাঁর ভাষণে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রোধ করার জন্য ভারতের সর্বত্র লকডাউনের মেয়াদ আগামী ৩রা মে পর্যন্ত বাড়ানোর কথা ঘোষণা করার পর আজ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক থেকে লকডাউন সংক্রান্ত নতুন নিয়মাবলী প্রকাশ করা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে, আগামী বিশে এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউনের নিয়ম মেনে চলার ব্যাপারে কড়াকড়ির পরে যদি দেখা যায়, নতুন করে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েনি, তা হলে যে সব জায়গায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে থাকবে, সেখানে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাজকর্মে কিছুটা ছাড় দেওয়া হবে।
যেমন নির্মাণ শিল্প, রাস্তাঘাট তৈরি, জল সরবরাহের জন্য পাইপলাইন বসানো, খেতের ফসল কাটা, ফসল তোলা, নানা জায়গায় আটকে পড়া পর্যটকেরা যে সব হোটেলে রয়েছেন সেগুলি খোলা থাকবে, অত্যাবশ্যক পরিষেবা চালু রাখতে যে সব কর্মীর প্রয়োজন তাঁদের যাতায়াতের ব্যবস্থা, নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরবরাহ করতে পণ্য বোঝাই ট্রাক এবং মালপত্র নামিয়ে ফেরার সময় খালি ট্রাক চলাচল, রেলের মালগাড়ি চালু রাখা, তথ্য ও প্রযুক্তি ক্ষেত্রে ও পরীক্ষাগারে ৫০ শতাংশ কর্মী দিয়ে কাজ চালানো, ইত্যাদি। তবে প্রতিটি ক্ষেত্রে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে এবং এই সব কিছু ঠিকঠাক পালিত হচ্ছে কি না সেই দিকে নজর রাখার দায়িত্ব ন্যস্ত থাকবে রাজ্য প্রশাসনের ওপরে। নিয়মাবলীতে আবারো স্পষ্ট করে বলা হয়েছে যে, লকডাউন চলাকালে পান সিগারেট গুটখা মদ ইত্যাদি নেশার দ্রব্য কেনাবেচা বন্ধ থাকবে। শপিং মল, সিনেমা হল, ক্লাব, জিমন্যাশিয়াম, সুইমিং পুল পুরো বন্ধ থাকবে। কোন সামাজিক অনুষ্ঠান এখন নয়। মৃতের শেষকৃত্যে কুড়ি জনের বেশি হাজির থাকতে পারবেন না। এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যাতায়াত করা যাবে না। যাত্রীবাহী ট্রেন ও বাস, কোনও রকমের ট্যাক্সি অটো রিকশা ও সাইকেল রিকশা চলবে না।
এদিকে গতকাল প্রধানমন্ত্রী লকডাউনের মেয়াদ আরো বাড়িয়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করার পরেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে পড়া মানুষের মধ্যে প্রচণ্ড হতাশা দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে পরিযায়ী শ্রমিকরা অত্যন্ত ক্ষুব্ধ। তাঁদের হাতে টাকা নেই, সরকার থেকে খাবার জোগানোর প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, খাবার জোটেনি। ঘরভাড়া দিতে না পারায় বাড়িওয়ালা বের করে দিয়েছে। এই অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী অথবা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ্, কেউই তাদের নিয়ে কিছু বলেননি। মুম্বাইয়ে আটকে পড়া শ্রমিকরা গতকাল বিক্ষোভ দেখালে পুলিশ লাঠি চালায়। তাদের মধ্যে শ'পাঁচেক বাঙালিও আছেন। ৩রা মে পর্যন্ত তারা বাঁচবেন কী ভাবে জানা নেই।
XS
SM
MD
LG