অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ওষুধ রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা আংশিক শিথিল করলো ভারত


অর্ডার মতো ওষুধ না পেলে ভারতের বিরুদ্ধে গতকালই প্রতিশোধ মূলক ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। তার পরিপ্রেক্ষিতে আজ ভারত কয়েকটি ওষুধের রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা আংশিক শিথিল করার কথা ঘোষণা করেছে। উল্লেখ্য, ম্যালেরিয়ার পুরনো ওষুধ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ও সাধারণ জ্বর ও গা-ব্যথার ওষুধ প্যারাসিটামল ইদানিং করোনার চিকিৎসায় পরীক্ষামূলক ভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে এবং এই দুটি ওষুধই সারা বিশ্বে সবচেয়ে বেশি উৎপাদন করে ভারত। করোনার প্রাদুর্ভাবের পরেই ভারতীয়দের চিকিৎসায় এগুলো লাগতে পারে ভেবে গত মাসে ভারত এর রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ধারণা, করোনার চিকিৎসায় হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইনই সবচেয়ে কার্যকর ওষুধ। দেশে ওই ওষুধ আপাতত যথেষ্ট মজুত থাকলেও জরুরি অবস্থায় আরও দরকার হতে পারে ভেবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ফোন করে সেই নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন সরবরাহের ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানান। ভারতের নীতি ছিল, আগে ভারতীয়দের প্রয়োজন মিটিয়ে তার পরে রপ্তানিতে সায় দেওয়া হবে।

ব্রিটিশ সংবাদপত্র দ্য গার্ডিয়ানের খবর, যুক্তরাষ্ট্রের সংক্রামক রোগ সংক্রান্ত সবচেয়ে নামী চিকিৎসক ও হোয়াইট হাউসের করোনা উপদেষ্টা ডাঃ অ্যান্থনি ফসি বলেছেন, হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন করোনা সংক্রমণ সারানোর কাজে কতটা সফল, এখনও প্রমাণিত হয়নি। একই বক্তব্য জর্জ ওয়াশিংটন ইউনিভার্সিটি হাসপাতালের এমার্জেন্সি মেডিসিনের অধ্যাপক ডঃ জেমস ফিলিপসের। তিনি বলেছেন, প্রেসিডেন্টের পরামর্শে আমেরিকার লোকেরা যদি হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন খাওয়া শুরু করেন, স্বাস্থ্যের গুরুতর ক্ষতি হতে পারে। যে রোগে যে ওষুধ পরীক্ষিত নয়, তা আমরা ডাক্তাররা কখনওই খেতে বলবো না। কিন্তু সোমবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প হুমকি দেন, ভারত যদি আমাদের দাবি অনুযায়ী হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন না দেয়, ভালো কথা। আমরা কিন্তু তার বদলা নিতে পারি। এর পর আজ মঙ্গলবার ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব জানান, ভারতের প্রতিবেশী কিছু দেশ এবং করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে আক্রান্তে যে সব দেশ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ও প্যারাসিটামলের মতো ওষুধের জন্য ভারতের ওপরে নির্ভর করে থাকে, তাদের কথা ভেবে মানবিকতার খাতিরে ভারত ওষুধগুলির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা আংশিক ভাবে তুলে নিচ্ছে।

XS
SM
MD
LG