অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

৩২৪ নাগরিককে দেশে ফেরত নিয়ে গেছে ভারত


ভারত মারাত্মক করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কেন্দ্রস্থল চীনের উহান থেকে তাদের ৩২৪ নাগরিককে দেশে ফেরত নিয়ে গেছে। শনিবার নয়াদিল্লিতে অবতরণের পরে তাদের সেনাবাহিনী স্থাপিত দুটি পৃথক ব্যবস্থায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাদের দুই সপ্তাহ পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

বৃহস্পতিবার দক্ষিণাঞ্চলীয় কেরালার রাজ্যে ওহান থেকে ফিরে যাওয়া এক শিক্ষার্থীর শরীরে করোনাভাইরাসের বিষয়টি নিশ্চিত করে ভারত।চীনের বিভিন্ন বিশবিদ্দালয়ে অধ্যায়নরত বিশ হাজারের ও বেশি ভারতীয় শিক্ষার্থীর মধ্যে দুইশ শিক্ষার্থী দেশে ফেরত গেছে। দ্বিতীয় ফ্লাইটটি উহান এবং আশেপাশের অঞ্চলগুলো থেকে ভাইরাসটির বিস্তার রোধে লকডাউনের আওতাধীন আরও অনেক নাগরিককে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। ভারতের কর্তৃপক্ষ চীন ও হংকং থেকে আগত সমস্ত লোককে ভারতের সাতটি প্রধান বিমানবন্দরগুলোতে পরীক্ষা করে দেখছে এবং ভাইরাসে আক্রান্ত কাউকে সন্দেহ করা হলে তাকে পৃথক ব্যবস্থায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন যে দেশের জনবহুল শহরগুলোতে এর বিস্তার রোধে নজরদারি কঠিন হবে। শুক্রবার চীন থেকে চাহিদা বাড়ার মধ্যেও ব্যক্তিগত সুরক্ষামূলক পোশাক ও মুখোশ রফতানি নিষিদ্ধ করেছে ভারত। দেশের দুটি বড় এয়ারলাইনস চীনে তাদের বেশিরভাগ ফ্লাইট সাময়িকভাবে স্থগিত করেছে এবং কর্তৃপক্ষ ভারতীয়দের চীনে ভ্রমণ থেকে বিরত থাকতে বলেছে।ভারত ছাড়াও শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশও তাদের নাগরিকদের চীন থেকে দেশে ফেরত নিয়ে গেছে। শনিবার শ্রীলঙ্কা ৩৩ জন শিক্ষার্থীকে ফিরিয়ে নিয়ে গেছে।

এর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবকে আন্তর্জাতিক জনস্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে। চীনের বাইরে মানুষ থেকে মানুষে সংক্রমণের ঘটনা নিশ্চিত হওয়ার পর এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়।

XS
SM
MD
LG