অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

গণধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় উত্তরপ্রদেশ সরকারের কৈফিয়ৎ তলব করেছে আদালত


ভারতে উত্তরপ্রদেশের হাথরাস জেলায় এক দলিত কন্যাকে গণধর্ষণের পর খুন ও পুড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ আদালত উত্তরপ্রদেশ সরকারের কৈফিয়ৎ তলব করেছে। এলাহাবাদ হাইকোর্টের লখনৌ বেঞ্চের বিচারপতিরা বলেছেন, আগামী ১২ই অক্টোবর উত্তরপ্রদেশের অতিরিক্ত মুখ্য সচিব, পুলিশের ডিরেক্টর জেনারেল, হাথরাসের জেলাশাসক ও পুলিশ সুপার, প্রমুখ উচ্চপদস্থ সরকারি অফিসারেরা যেন আদালতে হাজিরা দেন এবং সমস্ত তথ্য-প্রমাণসহ তাঁরা যেন আদালতকে এই ঘটনায় তাঁদের কার্যকলাপ কী ও কেন তা বুঝিয়ে বলেন। বিচারপতিরা সেই দিন নিহত মেয়েটির বাবা মাকেও আদালতে যেতে বলেছেন এবং তাঁদের বক্তব্য নির্ভয়ে পেশ করতে বলেছেন। ওঁরা যাতে নির্বিঘ্নে ও নিরাপদে ওঁদের গ্রামের বাড়ি থেকে লখনৌ আদালতে পৌঁছতে পারেন তার ব্যবস্থা করতে উত্তর প্রদেশ সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত। দিন কয়েক আগে দলিত ঘরের ওই মেয়েটিকে উচ্চবর্ণের কিছু লোক গণধর্ষণ করার পরে প্রচণ্ড অত্যাচার করে, যার ফলে কয়েকদিন কোমায় থাকার পরে তাঁর মৃত্যু হয়। কিন্তু আদালতের মতে, তার চেয়েও বেশি অন্যায় করেছে যোগী আদিত্যনাথের প্রশাসন ও পুলিশ, যারা এই ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য রাতারাতি মেয়েটির দেহ পুড়িয়ে দেয়। বাবা-মা, আত্মীয় পরিজনের অনুরোধ সত্বেও দেহ তাঁদের হাতে তুলে দেওয়া হয়নি। এমনকি দাহকাজের সময় কাছাকাছি যেতেও দেওয়া হয়নি। তারপর থেকে মেয়েটির পরিবারবর্গের অভিযোগ, প্রশাসনের লোকের এমনকি জেলাশাসকের মতো উচ্চপদস্থ সরকারি আধিকারিকও তদন্তের নামে তাদের বাড়িতে গিয়ে হুমকি দিয়েছেন এবং জেলাশাসক নাকি মেয়েটির কাকাকে লাথি মেরেছেন। এইসব ঘটনা আদালতের বিচারকদের কানে পৌঁছনোর পর তাঁরা স্বতঃপ্রবৃত্ত হয়ে এই মামলা দায়ের করেছেন এবং সরকারি উচ্চপদস্থ অফিসারদের তলব করেছেন। উত্তরপ্রদেশ সরকার যেভাবে এই ঘটনাকে আড়াল করতে ব্যস্ত, পুলিশ যেভাবে বিরোধীদের সেখানে যেতে বাধা দিচ্ছে, সংবাদপত্রের প্রতিনিধিদের বাধা দেওয়া হচ্ছে, ধাক্কা মেরে বের করে দেওয়া হচ্ছে, তাঁদের নামে মিথ্যা মামলা করা হচ্ছে, তাতে আদালত অত্যন্ত ক্ষোভ প্রকাশ করেছে এবং বলেছে, কোনও রাজ্যে আইনের শাসন আছে কিনা এইসব ঘটনাতেই তার প্রমাণ হয়। ১২ই অক্টোবর আদালতে শুনানির ওপর পরবর্তী ঘটনা প্রবাহ অনেকটাই নির্ভর করছে।

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:14 0:00
সরাসরি লিংক


XS
SM
MD
LG