অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি নিয়ে উদ্বিগ্ন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী


করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি নিয়ে উদ্বিগ্ন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী শনিবারই উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেছেন। নতুন করে কড়া লকডাউনের জল্পনাও ছড়িয়েছে। তার মধ্যেই ফের দেশে করোনা সংক্রমণে ফের নয়া নজির। আজ রবিবার সকালে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া হিসেবে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১১ হাজার ৯২৯ জন। এখনও পর্যন্ত এক দিনে এত মানুষ করোনায় আক্রান্ত হননি। এই নিয়ে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ৩ লক্ষ ২০ হাজার ৯২২। পাশাপাশি এই নিয়ে পর পর দু’দিন ১১ হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হলেন। রবিবারের সংখ্যাটা প্রায় ১২ হাজারের কাছাকাছি।
কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেব অনুযায়ী দেশে ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৩১১ জনের। এই নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৯১৯৫। এর মধ্যে শুধু মহারাষ্ট্রেই মৃতের সংখ্যা ৩৮৩০। মৃতের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে গুজরাত, মৃত্যু হয়েছে ১৪৪৮ জনের। দিল্লিতে মৃতের সংখ্যা ১২৭১।করোনাভাইরাসের সংক্রমণেও শীর্ষে মহারাষ্ট্র। একমাত্র এই রাজ্যেই আক্রান্তের সংখ্যা লক্ষাধিক। আজ রবিবার দেওয়া কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের হিসেবে রাজ্যে মোট আক্রান্ত ১ লক্ষ ৪ হাজার ৫৬৮ জন। মহারাষ্ট্র ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর গতকাল শনিবারের বৈঠকে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আরও চার রাজ্য নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। তামিলনাড়ুতে আক্রান্ত হয়েছেন ৪২ হাজার ৬৮৭ জন। দিল্লিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৮ হাজার ৯৫৮। গুজরাতে কোভিড পজিটিভ ২৩ হাজার ৩৮ জন মানুষ।
উত্তরপ্রদেশে কোভিড আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৩ হাজার ১১৮। প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকে উঠে এসেছে, দেশের মোট করোনা আক্রান্তের দুই তৃতীয়াংশই রয়েছে এই পাঁচ রাজ্যে। তা ছাড়া এই রাজ্যগুলির বড় শহরগুলিতে দ্রুত হারে বাড়ছে সংক্রমণ। ফলে কেন্দ্র নতুন করে ভাবনাচিন্তা শুরু করেছে বলে শনিবারের বৈঠক সূত্রে খবর। গত শনিবার প্রধানমন্ত্রী বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন-সহ সংশ্লিষ্ট একাধিক মন্ত্রকের শীর্ষ আধিকারিকদের সঙ্গে। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত পাঁচ রাজ্যের স্বাস্থ্য আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।
please wait

No media source currently available

0:00 0:02:22 0:00


XS
SM
MD
LG