অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইরানের সঙ্গে পরমাণু বিষয়ে আন্তর্জাতিক চুক্তি প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করেছেন


bushehr Iran nuclear plant


প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইরানের সঙ্গে পরমাণু বিষয়ে আন্তর্জাতিক চুক্তি প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করেছেন । এই চুক্তির লক্ষ্য ছিল – ইরানকে তার পরমাণু অস্ত্র তৈরীর কর্মসুচী থেকে বিরত করা। ওদিকে ২০১৫ সালে প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার প্রশাসনকালে সম্পাদিত এই চুক্তির শরীক দেশ – বৃটেন, ফ্রান্স, জার্মানী, চীন ও রাশিয়া কেউই কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের এই প্রত্যাহারের বিষয়টি সমর্থন করছে না। রাশিয়া ও জার্মানীর পররাষ্ট্র মন্ত্রীরা ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক পর্য্যায়ে আলোচনা শুরু করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরেও কংগ্রেসের নেতারা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এই পদক্ষেপের সমালোচনা করছেন। যেমন প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাট দলীয় নেত্রী ন্যান্সী পেলোসি বলেন, তাড়াহুড়ো করে নেওয়া এই সিদ্ধান্ত ইরানকে নয়, আমেরিকাকেই বিচ্ছিন্ন করেছে। ইরানের শীর্ষ ধর্মীয় নেতা আয়াতোল্লা আলী খামেনী বলেন, ‘আমি প্রথম দিন থেকেই বলেছি – আমেরিকাকে বিশ্বাস করো না।’ জার্মান চান্সেলার এ্যাঙ্গেলা মার্কেল বলেছেন, তাঁর দেশ, তার কথায় – ‘ইরান যাতে ভবিষ্যতে এই চুক্তি মেনে চলে সেটা নিশ্চিত করার জন্য তাদের সাধ্যমত সবকিছুই করবে।’ জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রী তারো কোনো বলেছেন, তার দেশ ইরানের সঙ্গে চুক্তি সমর্থন করে কারণ তা আন্তর্জাতিক পর্য্যায়ে পরমাণু বিস্তার রোধ করার বিষয়টি জোরদার করে তুলবে এবং মধ্যপ্রাচ্যে স্থিতিশীল পরিবেশ গড়ে তুলবে। তিনি বলেন, জাপান যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাহরের সিদ্ধান্তের বিষয়টি ‘সতর্কতার সঙ্গে বিচার বিশ্লেষণ’ করে দেখবে।

এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র এবং বিভিন্ন দেশের প্রতিক্রিয়া নিয়ে ভয়েস অফ আমেরিকার প্রতিবেদন থেকে কিছু আলোচনা করছেন রোকেয়া হায়দার ও আহসানুল হক-

XS
SM
MD
LG