অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জাপানে করোনা পরিস্থিতির অবনতির ঘটনায় অলিম্পিক গেমসকে দুষছেন কেউ কেউ


জাপানে করোনা পরিস্থিতির অবনতি ঘটায় পরোক্ষভাবে অলিম্পিক গেমসকে দায়ী করছে কেউ কেউ

টোকিও অলিম্পিক শুরুর মাত্র কয়েকদিন পরেই জাপান করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা তীব্রভাবে বৃদ্ধি পেতে শুরু করে। বৃহস্পতিবার, দেশটি প্রথমবারের মতো দিনে ১৫ হাজার সংক্রমণের রেকর্ড করেছে। এই গেমস নতুন করে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের জন্য কতটুকু দায়ী, তা নিয়ে চিকিত্সা বিশেষজ্ঞরা এখন বিতর্ক করছেন । কর্মকর্তারা এই সংক্রমণকে “অত্যন্ত মারাত্মক” বলে সতর্ক করে দিয়েছেন।

গেমস শুরু হওয়ার পর থেকে জাপানে কমপক্ষে সাতবার দৈনিক সর্বোচ্চ রেকর্ড সংখ্যক সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে। বেশির ভাগ সংক্রমণ ঘটেছে টোকিও এবং তার আশেপাশে যেখানে হাজার হাজার অলিম্পিক ক্রীড়াবিদ, কর্মকর্তা এবং অন্যান্য অতিথিরা অবস্থান করছেন। তবে কর্মকর্তারা সতর্ক করে দিয়েছেন এই মুহুর্তে এটি কেবল একক ভাবে টোকিওর সমস্যা তা নয়।

করোনাভাইরাস ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে নিয়োজিত সরকারের মন্ত্রী ইয়াসুতোশি নিশিমুরা বৃহস্পতিবার বিশেষজ্ঞদের সাথে এক বৈঠকে বলেন, “নতুন সংক্রমণের সংখ্যা সারা দেশে চিন্তাতীত পর্যায়ে বেড়েছে”।

তিনি “পরিস্থিতিকে অত্যন্ত ভয়াবহ” উল্লেখ করে বলেন, কভিডের সংক্রমণ এখন ডিপার্টমেন্টাল স্টোর, হেয়ারড্রেসার এবং স্কুলের মতো জায়গায় ছড়িয়ে পড়ছে।

তবে অলিম্পিকের আয়োজকরা জোর দিয়ে বলছেন, গেমস এবং এই রোগের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে কোন সম্পর্ক নেই। এ পর্যন্ত, শুধুমাত্র ৩৫৩ জন অলিম্পিক-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি পজেটিভ শনাক্ত হয়েছে। অলিম্পিকের সাথে জড়িত পরিদর্শক, কর্মীদের বেশিরভাগই টিকা নিয়েছে, এবং জনসাধারণের সাথে তাদের মেলামেশাও খুব সীমিত করার লক্ষ্যে তাদের সুরক্ষিত রাাখা হচ্ছে।

অনেক জাপানি মিডিয়া সাংবাদিক এবং অলিম্পিক ক্রীড়াবিদদের কথা উল্লেখ করে বলেছে, তাঁরা কভিড সুরক্ষামূলক নির্দেশিকা মেনে চলেননি। নির্দেশিকাগুলি অপর্যাপ্ত বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে তারা। উদাহরণস্বরূপ, কিছু জাপানি স্বেচ্ছাসেবক এবং অন্যান্য কর্মীকে বাড়ি ফেরার আগে সারাদিন কভিড সুরক্ষা বলয়ের মধ্যেই কাজ করতে হয়।

জাপান টিকা প্রদান বিলম্বে শুরু করলেও বর্তমানে তা দ্রুতগতিতে এগুচ্ছে। বৃহস্পতিবার সরকারি হিসাব অনুযায়ী, জাপানিদের ৩২ শতাংশ মানুষকে সম্পূর্ণভাবে টিকা দেওয়া হয়েছে, আর একটি করে ডোজ পেয়েছে দেশটির ৪৫ ভাগ জনগণ।

XS
SM
MD
LG