অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

লিবিয়ায় পাচারকারীদের গুলিতে ২৬ বাংলাদেশি খুন


মানব পাচারকারীদের এলোপাতাড়ি গুলিতেই লিবিয়ায় ২৬ জন বাংলাদেশি খুন হয়েছেন আহত ১১ জনের মধ্যে ৫ জনের অবস্থা সংকটজনকঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার ত্রিপোলি শহর থেকে ১৮০ কিলোমিটার দক্ষিণে মিজদাহ শহরে।লিবিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এসব অভিবাসী মিজদাহ শহরের এক পাচারকারী চক্রের কাছে জিম্মি ছিলেন। টাকার জন্য তাদেরকে জিম্মি করা হয়। এরপর হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।নাম গোপন রেখে একজন প্রত্যক্ষদর্শী বাংলাদেশ দূতাবাসকে জানিয়েছেন, ১৫ দিন আগে মরুভূমি পাড়ি দিয়ে বেনগাজী থেকে ৩৮ জনকে একসাথে নিয়ে যাওয়া হয়। মিজদাহ শহরের একটি বাড়িতে তাদের রাখা হয়। পাচারকারীরা তাদের কাছে মোটা অঙ্কের টাকা দাবি করে। এবং নির্যাতন শুরু করে। নির্যাতনের এক পর্যায়ে ঘটনার মূল হোতা অভিবাসীদের হাতে খুন হন। এই খবরটি পাচারকারীদের পরিবার-পরিজনের কাছে পৌঁছালে তখনই তারা সংঘবদ্ধভাবে এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। এতেই বাংলাদেশিরা মারা যান। স্থানীয় মিলিশিয়া বাহিনীও গুলি চালিয়েছে এমন খবর রয়েছে। ঢাকায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন সাংবাদিকদের কাছে ঘটনার বর্ণনা করেছেন। তিনি এই ঘটনার জন্য মানব পাচারকারীদের দায়ী করেছেন। আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার কাছে ক্ষতিপূরণ চেয়েছেন।

ওদিকে লিবিয়ায় জাতিসংঘ সমর্থিত সরকারের তরফে বলা হয়েছে একজন মানব পাচারকারীকে হত্যার প্রতিশোধ নিতে ২৬ জন বাংলাদেশি সহ ৩০ জন অভিবাসন প্রত্যাশী খুন হয়েছেন। পাচারকারী দলের পরিবারের সদস্যরাই এই নৃশংস হত্যাকাণ্ড চালায়। ওই ঘটনায় চারজন আফ্রিকান নাগরিকও মারা গেছেন।

লিবিয়ার স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম খবর দিয়েছে ৩৮ জন বাংলাদেশির সবাই গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। মারা গেছেন ২৬ জন। তাদের লাশ মিজদাহ শহরের একটি হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

নিহত ২৬ জনের মধ্যে ১২ জনের লাশ শনাক্ত করা হয়েছে। এরা সবাই মাদারীপুর জেলার বাসিন্দা। বাকিরা ফরিদপুর, চুয়াডাঙ্গা ও কিশোরগঞ্জের।

ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরীর রিপোর্ট।

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:17 0:00
সরাসরি লিংক


XS
SM
MD
LG