অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

লন্ডনে শুক্রবারের আক্রমণকারী ছিল সন্ত্রাসবাদে অভিযুক্ত


ব্রিটেনের নিরাপত্তা কর্মকর্তারা বলেছেন, গতকাল লন্ডনে ছুরি নিয়ে আক্রমণের পর পুলিশ এখন আর কোন সন্দেহভাজনকে খুঁজছে না। গতকালের ঐ ছুরিকাঘাতে দু'জন নিহত হন এবং তিন জন আহত হয়ে হাসপাতালে রয়েছেন।

লন্ডন ব্রিজের উত্তর কোণে দুপুরের দিকে ফিশ মংগার হলে পুলিশ ডাকা হয় যেখানে কেম্ব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়, লার্নিং টুগেদার শীর্ষক, বন্দী পুনর্বাসন বিষয়ক এক সেমিনারের আয়োজন করেছিল।

বিবিসি'র খবরে জানানো হয়েছে যে এই সন্দেহভাজন, ২৮ বছর বয়সী উসমান খান, যাকে ২০১২ সালে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছিল এবং ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে তাকে প্রোবেশনে মুক্তি দেয়া হয়। সে ঐ অনুষ্ঠানে যোগ দেয়। তার পর সে ক্ষিপ্র গতিতেত হামলা শুরু করে এবং লন্ডন ব্রিজে বেরিয়ে আসে। সেখানে সে বহুলোককে ছুকাঘাতে আহত করার পর, তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়।

পুলিশ বলছে উসমান খান একটি নকল আত্মঘাতী পোশাক পরেছিল।

প্রথমে কয়েকজন অসামরিক লোক তাকে থামানোর চেষ্টা করে এবং তার হাত থেকে ছুরি কেড়ে নেয়।টুইটারে পোস্ট করা লোকজনের নেয়া ভিডিও তে দেখা গেছে পুলিশ লন্ডন ব্রিজের উপর এগিয়ে আসছে, এবং একজনের সঙ্গে হাতাহাতির পর, তাকে টেনে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। পুলিশ পরে তাকে কাছ থেকে গুলি করে হত্যা করে।

পুলিশের লন্ডন মেট্রপলিটান সহকারি কমিশনার নীল বসু সংবাদদাতাদের বলেছেন এই ঘটনাটিকে সন্ত্রাসী আক্রমণ বলেই অভিহিত করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে ওয়াশিংটন স্টুডিও থেকে তাওহীদুল ইসলাম সরাসরি টেলিফোনে কথা বলেছেন লন্ডনে বসবাসকারী সাংবাদিক ও বিশ্লেষক সুজা মাহমুদের সঙ্গে।


XS
SM
MD
LG