অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মিয়ান্মারে রাতে ইন্টারনেট বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে


File Photo

মিয়ান্মারের অধিবাসীরা গত ২৪টি রাত ধরে একই অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে , প্রধানত রাতের বেলায় ইন্টারনেট বন্ধ করে দেয়া হয়, আবার সকল বেলায় তা চালু করা হয়। তার পর সে দেশের হাজার হাজার লোক ঝাঁপিয়ে পড়ে সিফন অ্যাপ কিংবা অন্যান্য অ্যাপ ব্যবহার করতে যাতে করে তারা সামরিক সরকারের ফিল্টার ও ব্লক এড়িয়ে ফেইসবুক, টুইটার এবং অন্যান্য জনপ্রিয় সাইটে যেতে পারে। রাতের বেলায় এই ইন্টারনেট যোগাযোগ ব্যবস্থা মিয়ান্মারের সামরিক সরকারই বন্ধ করে রাখে

মিয়ান্মারের অধিবাসীরা গত ২৪টি রাত ধরে একই অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে , প্রধানত রাতের বেলায় ইন্টারনেট বন্ধ করে দেয়া হয়, আবার সকল বেলায় তা চালু করা হয়। তার পর সে দেশের হাজার হাজার লোক ঝাঁপিয়ে পড়ে সিফন অ্যাপ কিংবা অন্যান্য অ্যাপ ব্যবহার করতে যাতে করে তারা সামরিক সরকারের ফিল্টার ও ব্লক এড়িয়ে ফেইসবুক, টুইটার এবং অন্যান্য জনপ্রিয় সাইটে যেতে পারে। রাতের বেলায় এই ইন্টারনেট যোগাযোগ ব্যবস্থা মিয়ান্মারের সামরিক সরকারই বন্ধ করে রাখে। সিফনের প্রেসিডেন্ট মাইকেল হাল বলেন ইন্টরনেটে তো এমন কোন ব্যবস্থা নেই যে তা নিজে নিজেই বন্ধ হবে বা খুলে যাবে।

সিফন হচ্ছে এমন একটি ব্যবস্থা যে তা নিজস্ব নেটওয়ার্কের মতোই বিভিন্ন সাইটে যেতে পারবে কোন ভাবে চিহ্নিত না হয়েই। মিয়ান্মার হচ্ছে সর্ব সাম্প্রতিক রাষ্ট্র যেখানে এই ইন্টারনেট বন্ধ করা হলো। বিশ্বব্যাপী সংকটের সময়ে বিভিন্ন দেশের সরকার এই কৌশল অবলম্বন করে থাকে।

অ্যাকসেস নাও নামের একটি ডিজিটাল অধিকার গোষ্ঠির মতে ২০২০ সালে ২৯ টি দেশে ১৫৫ বার ইন্টারনেট বন্ধ করে দেয়া হয়। অ্যাকসেস নাও ‘এর শীর্ষ আন্তর্জাতিক উপদেষ্টা এবং এশিয়া পলিসির পরিচালক রামান জিত্ সিং চিমা বলেন রাজনৈতিক নিয়ন্ত্রণের জন্যই প্রধানত ইন্টারনেট ব্লক করা হয়। ভারতে ১০৯ বার ইন্টরনেট বন্ধ করা হয়েছে প্রধানত ভারত শাসিত কাশ্মিরে। বেলারুশে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পর আগস্ট মাসে ৬১ ঘন্টা ধরে ইনটরনেট বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল।

XS
SM
MD
LG