অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কাবুল থেকে বাণিজ্যিক ফ্লাইট পরিচালনা পুনরায় শুরু হবার তথ্য সঠিক নয়: পিআইএ মুখপাত্র


আফগানিস্তানের পতাকা সম্বলিত একটি বিমান কাবুল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অপেক্ষা করছে। পেছনে তালিবান পতাকা বাতাসে উড়ছে। ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১।

শনিবার পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স (পিআইএ) জানিয়েছে, ইসলামাবাদ থেকে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে বাণিজ্যিক ফ্লাইট “পুনরায় চালু করতে তারা আগ্রহী।” তবে এ বিষয়ে কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।

পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্স এর মুখপাত্র আবদুল্লাহ হাফিজ ভিওএকে বলেন, সোমবার থেকে ফ্লাইট পরিচালনা পুনরায় শুরু হবে এমন তথ্য সঠিক নয়।তিনি ব্যাখ্যা করেন যে আফগান রাজধানীর কিছু সংস্থা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে এবং পিআইএকে চার্টার ফ্লাইট চালানোর অনুরোধ করেছে। তার পরিপ্রেক্ষিতে এয়ারলাইন্স ঐ চার্টার ফ্লাইট পরিচালনার অনুমতি দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছে।

হাফিজ স্পষ্ট করে বলেন, "আমরা আসলে কাবুলে একটি চার্টার ফ্লাইটের অনুমতি চেয়েছিলাম যা সংবাদ মাধ্যমে বলা হয় যে পিআইএ ১৩ই সেপ্টেম্বর থেকে তার নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করছে।কিন্তু বিষয়টি তা নয়।"

তিনি বলেন যে ফ্লাইট পরিচালনা পুনরায় শুরু হওয়ার আগে "নির্দিষ্ট ব্যবস্থা থাকতে হবে এবং সেই ব্যবস্থাগুলি এখনও করা হয়নি।" হাফিজ আর বিস্তারিত কোন তথ্য দেননি।

ওদিকে, কর্মকর্তারা শনিবার জানিয়েছেন, পাকিস্তান সরকারের ত্রাণ সহায়তা বহনকারী তৃতীয় ফ্লাইটটি আফগানিস্তানে অবতরণ করেছে।

আগস্টের ৩০ তারিখ, স্থানীয় সময় মধ্যরাতের ঠিক আগে আমেরিকান বাহিনী প্রত্যাহারের মধ্য দিয়ে শেষ হয়ে যাওয়া আমেরিকান এবং পশ্চিমা নাগরিকসহ ১২০,০০০ এরও বেশি লোকের জরুরি ভিত্তিতে সে দেশ ত্যাগের সময় যে বিশৃঙ্খল অবস্থার সৃষ্টি হয় তাতে কাবুলের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

তালিবান, যারা ১৫ই আগস্ট কাবুলে পুনরায় ক্ষমতা দখল করে তারা কাতার এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের কারিগরি সহায়তায় বিমানবন্দরটি আবার চালু করতে হিমশিম খাচ্ছে। একটি আফগান বিমান সংস্থা গত সপ্তাহে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট পুনরায় শুরু করেছে।

কাতার এয়ারওয়েজ চলতি সপ্তাহে কাবুল থেকে চার্টার ফ্লাইট পরিচালনা করেছে, যার মধ্যে ২৫০ জন বিদেশী নাগরিক রয়েছে। কয়েক ডজন আমেরিকানসহ যাত্রীরা দেশ ছাড়ার জন্য বিশৃঙ্খল জরুরি উদ্ধার অভিযানে ব্যবহৃত ফ্লাইটগুলোতে উঠতে পারেননি।

XS
SM
MD
LG