অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আগামীকাল অযোধ্যায় ভূমি পূজা করতে যাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদী


শেষ পর্যন্ত সব জল্পনা উড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আগামীকাল অযোধ্যায় ভূমি পূজা করতে যাচ্ছেন। তাঁর হাত দিয়েই ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হবে। এ ব্যাপারে আয়োজকদের আশঙ্কা ছিল, কারণ মন্ত্রিসভায় প্রধানমন্ত্রীর পরেই যাঁর স্থান সেই অমিত শাহ্ করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। যেহেতু তাঁর সঙ্গে গত কয়েক দিনে প্রধানমন্ত্রীর বেশ কয়েকবার দেখা-সাক্ষাৎ কথাবার্তা হয়েছে, সুতরাং তাঁর কোয়ারান্টিনে থাকার কথা ছিল। শেষ পর্যন্ত আজ প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকে তাঁর সফরসূচী জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। মোদী সকাল সাড়ে নটা নাগাদ দিল্লি থেকে রওনা হয়ে লখনউ পৌঁছে বিমানবন্দর থেকে হেলিকপ্টারে করে যাবেন অযোধ্যায়। একটা বড় ব্যাপার হচ্ছে, যে শুভ মুহূর্তে এই ভূমি পূজার আয়োজন করা হয়েছে সেটি স্থায়ী হবে মাত্র ৩২ সেকেন্ড। ১২টা বেজে ৪৪ মিনিট ৮ সেকেন্ডে শুরু হয়ে শেষ হবে ১২টা বেজে ৪৪ মিনিট ৪০ সেকেন্ডে। এদিকে যিনি এই শুভ মুহূর্ত ঘোষণা করেছিলেন, তাঁকে কোনো কোনো মহল থেকে খুনের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। তিনি থাকেন কর্নাটকে, তাঁর পাহারা বাড়ানো হয়েছে। কারা খুনের হুমকি দিচ্ছে তা অবশ্য এখনও জানা যায়নি। ঠিক হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একই মঞ্চে থাকবেন আরও চার জন। তারমধ্যে মন্দির ট্রাস্টের প্রধান নৃত্যগোপাল ছাড়াও আছেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের প্রধান মোহন ভাগবত, উত্তর প্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দীবেন আর উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এঁরা ছাড়া ১৭৫ জন অতিথির অন্য একটি মঞ্চে বসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। শেষ পর্যন্ত লালকৃষ্ণ আডবাণীকে উদ্যোক্তারা আমন্ত্রণ জানাননি। তার কারণ হিসেবে ওঁরা বলেছেন, ৯২ বছর পার হয়ে যাওয়া বৃদ্ধ মানুষকে এই করোনা পরিস্থিতিতে আমন্ত্রণ জানিয়ে বিপদের মধ্যে ফেলতে চাই না। এদিকে গোটা অযোধ্যায় সাজ সাজ রব পড়ে গিয়েছে। যেই পথ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী রাম মন্দিরের ভিত্তি স্থাপন করতে যাবেন তার আশপাশের সবকটি বাড়ির রং হলুদ করে দেওয়া হয়েছে। রাতেও সারা অযোধ্যা নগরী আলোকসজ্জায় সাজতে শুরু করেছে। তবে রাম ভক্তদের জন্য একটা খারাপ খবর হলো, নিউ ইয়র্কের টাইমস স্কোয়ারে আগামীকাল বিলবোর্ডে রামের ছবি এবং ভূমি পূজার ভিডিও দেখানোর কথা ছিল, সেই সঙ্গে প্রস্তাবিত মন্দিরের ত্রিমাত্রিক ছবি। সে সব কিছুই হচ্ছে না। মুসলিম কয়েকটি সংগঠনের আপত্তিতে সেটি বাতিল করে দেওয়া হয়েছে‌ মুসলিম সংগঠনগুলো বলেছে, ওরকম একটা জায়গায় ধর্মের ভিত্তিতে কোনও কিছু দেখানো উচিত হবে না।

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:12 0:00
সরাসরি লিংক


XS
SM
MD
LG