অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আজ ভারতের আটষট্টিতম সাধারনতন্ত্র দিবস। এদিন দেশের মূল সাধারনতন্ত্র দিবস পালনের অনুষ্ঠানে নতূন দিল্লীর রাজপথে বর্ণাঢ্য কুচকাওয়াজে দেখা মিলল- তেজস যুদ্ধবিমান, রুদ্র কপ্টার, টি নাইন্টি ট্যাঙ্ক, ধনুষ আর্টিলারির। দেশজুড়ে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে প্যারেড অনুষ্ঠান পালিত হয়। এদিন সাধারন তন্ত্র দিবস উদযাপনে নতুন দিল্লীর রাজপথে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানে দেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়, উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী সহ দেশের কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভার সদস্যরাও। ভারতের আটষট্টিতম সাধারনতন্ত্র তথা সাধারনতন্ত্র দিবসে দিল্লিকে নিশানা করতে পারে জঙ্গিরা। সতর্কবার্তা পাওয়ার পর থেকেই কড়া নিরাপত্তার ঘেরাটোপে মোড়া হয় রাজধানী দিল্লি। ছিল পনেরো হাজার ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা। রাজপথে নিরাপত্তায় মোতায়েন করা হয়, এক হাজার নিরাপত্তারক্ষী। দিল্লির দশটি গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিল কম্যান্ডো বাহিনী। আকাশ পথে হামলা রুখতে রাজধানীর দু’টি জায়গায় বসানো হয়েছে বিমানধ্বংসকারী অ্যান্টি এয়ারক্রাফট গান। চলে ড্রোন থেকে নজরদারি। নিরাপত্তার কারণে কুচকাওয়াজের সময় থেকে দুপুর দুটো পর্যন্ত বন্ধ রাখা হয় ইন্ডিয়া গেট সংলগ্ন পটেল চক, সেন্ট্রাল সেক্রেটারিয়েট, রেস কোর্স ও উদ্যোগ ভবন মেট্রো স্টেশন। একই সাথে এদিন গোটা দেশের পাশাপাশি এরাজ্যেও যথোচিত মর্যাদায় সাধারনতন্ত্র দিবস পালিত হয়, মূল অনুষ্ঠানটি হয় কলকাতার রেড রাজ্য সরকারের আয়োজনে। দেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে কুচকাওয়াজ প্রদর্শনের মধ্য দিয়ে অভিবাদন গ্রহন করেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল কেশরী নাথ ত্রিপাঠী সেই সংগে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় এছাড়াও সাধারনতন্ত্র তথা প্রজাতন্ত্র দিবস পালনের রাজ্যের মূল অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য মন্ত্রীসভার সদস্য ছাড়াও রাজ্যের সংসদ সদস্যরা থেকে শুরু করে সমাজের বিভিন্ন স্তরের বিশিষ্ট জনেরা।

XS
SM
MD
LG