অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

হুমায়ূন আহমেদকে যারা ছোট করেন, তারা নিন্দনীয় কাজ করেন-লুৎফর রহমান রিটন


Humayun Ahmed

বাংলা সাহিত্যের জগতে অসামান্য জনপ্রিয়তার অধিকারী লেখক হুমায়ূন আহমেদ । সম্প্রতি তার ৫ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হলো। তার লেখার ব্যাপারে পাঠকের উৎসাহ কিন্তু কমে নি। এর কারণটি কি? সুপরিচিত ছড়াকার লুৎফর রহমান রিটন বললেন, তিনি বাঙালীর মননে মেধায় যেভাবে আঁচড় কেটেছেন, আধুনিক বাংলা সাহিত্যে আর কোনো লেখক সেরকম আঁচড় কাটতে পারেননি। রিটন বললেন,তার দীর্ঘ সাহিত্য জীবন এবং টেলিভিশন জীবনে এমন মেধাবী মানুষ তিনি দেখেননি।

বাংলা সাহিত্যে তিনি ছিলেন একজন যাদুকরের মতো। বাঙালী মধ্যবিত্তের তিনি ছিলেন অপরূপ কথক। আশির দশকে যখন হুমায়ূন আহমেদের টিভি সিরিয়াল এইসব দিনরাত্রি দর্শকদের কাছে অভূতপূর্ব জনপ্রিয়তা পায়, তখন থেকেই টিভিতে তার নাটক চলাকালীন সময় ঢাকা শহরের রাস্তা ফাঁকা হয়ে যেত। কারণ সবাই বাসায় বসে তার নাটক দেখতে ব্যস্ত। নাটকের নামকরণেও তিনি ছিলেন আলাদা, বিপুল জনপ্রিয় টিভি সিরিয়ালের নাম দিয়েছিলেন বহুব্রিহী, অয়োময়। এমন সব নামে যে কোনো ধারাবাহিক হতে পারে, তা আগে কেউ ভাবেনি। তার গদ্য সহজ, সরল, স্মার্ট এবং ঝরঝরে। তার লেখা বুঝতে পাঠককে বিশেষভাবে শিক্ষিত হবার প্রয়োজন নেই। বাঙালী মধ্যবিত্তের যে কোনো মামুলি ঘটনা তার হাতে গল্প হয়ে উঠতো। মনের যে কথাগুলো আমরা কারো কাছে বলতে পারতাম না, হুমায়ূন আহমেদ সে কথাগুলো বলে দিতেন। যে সময়ে বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধী রাজাকারেরা ক্ষমতায় জাঁকিয়ে বসছে, সে সময়ে তিনি তার নাটকের মধ্যে পাখির গলায় ‘তুই রাজাকার’ শ্লোগান নির্মাণ করেছেন।

কয়েক দশক ধরে একুশের বইমেলায় তিনি ছিলেন মধ্যমণি। তার নাটক ছাড়া ঈদের আনন্দ পরিপূর্ণ হতো না। রিটন বললেন, তিনি আগেও যেমন হুমায়ূন আহমেদ নিয়মিত পড়তেন, এখনও পড়েন। হুমায়ূন আহমেদ তার জীবনের অংশ। হুমায়ূন আহমেদকে যারা ছোট করেন, তারা নিন্দনীয় কাজ করেন। তিনি বাঙালীর মননে মেধায় যেভাবে আঁচড় কেটেছেন, বাংলা সাহিত্যে আর কোনো লেখক সেরকম আঁচড় কাটতে পারেননি।

লুৎফর রহমান রিটনের সাথে কথা বলেছেন ভয়েস অফ আমেরিকার সাংবাদিক আহসানুল হক। পুরো সাক্ষাৎকারটি শুনতে নিচে প্লে বাটনে ক্লিক করুন।

XS
SM
MD
LG