অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সিদ্ধান্ত গ্রহণে রোহিঙ্গাদের অংশগ্রহণ থাকা আবশ্যক- অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল 


সিদ্ধান্ত গ্রহণে রোহিঙ্গাদের অংশগ্রহণ থাকা আবশ্যক- অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল 

লন্ডন ভিত্তিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলেছে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের জীবনে প্রভাব ফেলা যেকোনো সিদ্ধান্তে তাদের অংশগ্রহণ ও নিজেদের কথা বলার অধিকার থাকা আবশ্যক। 

লন্ডন ভিত্তিক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলেছে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের জীবনে প্রভাব ফেলা যেকোনো সিদ্ধান্তে তাদের অংশগ্রহণ ও নিজেদের কথা বলার অধিকার থাকা আবশ্যক।

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল
অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল

সংস্থাটি মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে বলেছে সিদ্ধান্তগ্রহণের প্রক্রিয়ায় রোহিঙ্গা শরণার্থীদের অংশগ্রহণ না থাকার কারণে তাদের মানবাধিকার প্রতিনিয়ত ক্ষুণ্ণ হচ্ছে। এতে বলা হয়েছে যুগ যুগ ধরে মিয়ানমারে রোহিঙ্গারা নির্যাতন ও বৈষম্যের শিকার হয়ে আসছে এবং তাদের বিরুদ্ধে সংঘটিত মানবতা বিরোধী অপরাধের কারণে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছে। এসকল মানুষকে বাংলাদেশের মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছন্ন ভাসানচর নামের একটি বালুচরে তাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে স্থানান্তর না করার আহ্বান জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়েছে যে ৩০০ জন রোহিঙ্গা সেখানে অবস্থান করছেন তাঁদের থাকা, খাওয়া ও চিকিৎসার দুর্বল ব্যবস্থাপনা নিয়েও সংস্থাটি উদ্বিগ্ন। ভাসান চরের বাসযোগ্যতা নিয়ে জাতিসংঘ এখনও তার মূল্যায়ন জানায় নাই বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

ভাসানচর রোহিঙ্গা স্থানান্তর কেন্দ্র
ভাসানচর রোহিঙ্গা স্থানান্তর কেন্দ্র

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল রোহিঙ্গাদের সহায়তায় নেয়া বাংলাদেশের বিভিন্ন ইতিবাচক পদক্ষেপের প্রশংসা করে বলেছে তবে রোহিঙ্গাদের কোনও ধরনের সম্পৃক্ততা ছাড়া চলমান সিদ্ধান্তগ্রহণ প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতার অভাব রয়েছে। তাঁদের মানবাধিকার সংরক্ষণ নিশ্চিত করতে রোহিঙ্গাদের প্রতিনিধিত্ব সহকারে পরিষ্কার একটি নীতিমালা প্রয়োজন বলে উল্লেখ করে সংস্থাটি রোহিঙ্গা শরণার্থীদের রক্ষায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কেও তাদের সহযোগিতার অংশ হিসেবে বাংলাদেশ সরকারকে নীতিমালা প্রণয়নে সহায়তা ও একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছে।


XS
SM
MD
LG