অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সাংবাদিক রোজিনার মামলা তদন্ত করবে গোয়েন্দা পুলিশ


ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার মুখে অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে গ্রেপ্তার প্রথম আলোর সিনিয়র সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের মামলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখায় হস্তান্তর করা হয়েছে। সোমবার মধ্যরাতে তাকে আটকের কথা জানায় পুলিশ। এর আগে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একটি কক্ষে পাঁচ ঘণ্টারও বেশি সময় তাকে আটকে রাখা হয়। মঙ্গলবার তার জামিন আবেদন নাকচ হয়ে যায়। তবে রিমান্ডের আর্জি খারিজ করেন আদালত। রোজিনার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি রাষ্ট্রীয় গোপন তথ্য চুরি করার সময় ধরা পড়েছিলেন। যদিও রোজিনা তা অস্বীকার করেছেন। একজন উপসচিব বাদি হয়ে এই মামলাটি করেন। এই ঘটনায় সারা দেশে প্রতিবাদ জারি রয়েছে। সাংবাদিকদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষও এতে অংশ নিচ্ছেন।

সাংবাদিক রোজিনার মামলা তদন্ত করবে গোয়েন্দা পুলিশ
please wait

No media source currently available

0:00 0:01:38 0:00
সরাসরি লিংক

জাতিসংঘের তরফেও উদ্বেগ জানানো হয়েছে। সংস্থাটির মুখপাত্র স্টিফেন ডুজাররিক মঙ্গলবার নিয়মিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, সাংবাদিকদের কাজের মুক্ত ও স্বাধীন পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। এটি বাংলাদেশ এবং পৃথিবীর সকল দেশের বেলায় প্রযোজ্য। মুখপাত্র আরও বলেন, কোনো প্রকার হয়রানি বা শারীরিক হুমকির উর্ধে বিশ্বের যেকোনো প্রান্তে সাংবাদিকদের কাজের মুক্ত পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের এই সময় সাংবাদিকরা যে ভুমিকা পালন করেছেন তা আমরা সবাই দেখেছি। সাংবাদিকরা যেখানেই দায়িত্ব পালন করুন না কেন, কাজের ক্ষেত্রে হতে হবে স্বাধীন।

রোজিনা ইস্যুতে সাংবাদিকদের ধৈর্য্য ধরতে বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, যেহেতু মামলা হয়েছে এবং বিষয়টি বিচারাধীন তাই অপেক্ষা করুন, তিনি ন্যায় বিচার পাবেন।

XS
SM
MD
LG