অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইন্টারনেটে প্রকাশিত জাল ছবিগুলিকে সনাক্ত করতে ডিজিটাল স্বাক্ষরের ব্যবহার


পুরানো প্রচলিত একটি প্রবাদ আছে যে "একটা জিনিষ দেখলেই তবে সেটি বিশ্বাস করা যায়।” তবে সেই দিন কিন্তু শেষ হয়ে যাচ্ছে, কারণটা হল এই যে এখন আমরা অনলাইনে এমন অনেকের ছবি দেখি যাদের কারুরই কোন অস্তিত্ব নেই। এ বিষয়ে ভয়েস অফ আমেরিকার সংবাদদাতা ম্যাট ডিবল তার এক প্রতিবেদনে জানাচ্ছেন যে, জাল চিত্রগুলিকে সনাক্ত করার একটি সমাধান হল এগুলির সত্যতার যাচাই করতে একটি সীল অর্থাৎ ডিজিটাল স্বাক্ষরের ব্যবহার।

এই জাল চিত্রগুলি সাধারনতঃ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে তৈরি করা হয়। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা এবং ফটো এডিটিং সফ্টওয়্যারগুলির দ্রুত অগ্রগতি অনলাইনে একটি সত্যিকারের এবং নকল চিত্রের মধ্যে পার্থক্য করা প্রায় অসম্ভব করে তুলেছে। সুতরাং প্রশ্নটা হল এই যে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা এবং ফটো এডিটিং সফ্টওয়্যারটির গুলির ক্ষেত্রে দ্রুত অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে আমরা কী অনলাইনে দেখি এমন ছবিগুলি বিশ্বাস করতে পারি?

ট্রুপিক নামক গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থার সহ-উপাধ্যক্ষ শেরিফ হান্না বলেন, "কোন চিত্রগুলি জাল সেটা সনাক্ত করার পরিবর্তে, আপনি কোনটা আসল তা প্রমাণ করার চেষ্টা করুন।" ট্রুপিক এমন একটি সফ্টওয়্যার তৈরি করেছে, যা ভবিষ্যতে ছবিগুলিতে সত্যতা যাচাই করার জন্য একটি অনন্য ডিজিটাল স্বাক্ষর লাগাতে সক্ষম হবে। স্মার্টফোনে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্বীকৃতি পরিচালনা করতে যে প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়, সেই একই প্রযুক্তি একটি চিপে সুরক্ষিত করার জন্য ট্রুপিক চিপমেকার সংস্থা কোয়ালকমের সাথে অংশীদার হয়েছে। কোয়ালকম সংস্থাটি স্মার্টফোনে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্বীকৃতির প্রযুক্তিটি নিয়ে কাজ করছে।

ট্রুপিক নামক গবেষণা ও উন্নয়ন সংস্থার সহ-উপাধ্যক্ষ শেরিফ হান্না আরও বলেন, "আমরা এই ছবিগুলি যখন তৈরি করি, তখন মূলতঃ তাদের উপর একটি সিল অর্থাৎ ডিজিটাল স্বাক্ষর থাকে সুতরাং "পিক্সেল, তারিখ ঙ্গথবা সময় সম্পর্কে কেউ যদি এই ছবিগুলিতে কোন রকম পরিবর্তন করে, তবে যে সিলটি করা হয়েছিল সেটি নষ্ট হয়ে যাবে, এবং সেই ফাইলটি তৈরি করার পর থেকে কি কি পরিবর্তন করে তা সংশোধিত করা হয়েছে তা জানতে পারা যাবে।" তিনি আরও বলেন, “সুতরাং ছবি তোলা থেকে শুরু করে ছবিটি দেখা পর্যন্ত কি কি পরিবর্তন হয়েছে, তা আপনার কাছে পরিষ্কার থাকবে এবং আমরা আশা করছি যে, আগামি ১0-বছরের মধ্যে আমরা দেখতে পাব যে, কোনও ছবি বা ভিডিও তার সত্যতা যাচাই করার জন্য উপযুক্ত প্রমাণ সহ প্রকাশ করা হচ্ছে।"

একটি ছবি তোলার স্থান এবং সময় ছাড়াও, সিস্টেমটিতে লেন্সের সামনে দৃশ্যের একটি ত্রিমাত্রিক মানচিত্র লাগানো থাকবে। পরে যে ব্যাক্তি এই ছবি দেখছেন, তিনি এই ছবিটিতে করা যে কোনও পরিবর্তনের সমস্ত তথ্য অ্যাক্সেস করতে পারবেন।

ট্রুপিক মাইক্রোসফ্ট, অ্যাডোবী এবং অন্যান্য মিডিয়া সংস্থাগুলির সাথে বিভিন্ন সফ্টওয়্যারগুলির বিকাশে সহযোগিতা করছে এবং বলে তারা আশা করছে যে, অবিলম্বেই প্রতিটি ইন্টারনেট ব্রাউজার এবং অ্যাপ্লিকেশনগুলি, যার মাধ্যমে এই ছবিগুলি আমরা দেখতে পাই, তার মধ্যে এই প্রযুক্তি অন্তর্ভুক্ত থাকবে এবং জাল চিত্রগুলি সহজেই সনাক্ত করা সম্ভব হবে।

please wait

No media source currently available

0:00 0:03:27 0:00


XS
SM
MD
LG