অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবি জোরালো হচ্ছে


শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার দাবি ক্রমেই জোরালো হচ্ছে। করোনার কারণে প্রায় এক বছর যাবত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। সরকার ২৪শে মে’র আগে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে রাজি নয়। শিক্ষার্থীরা এটা মানতে নারাজ। তাদের কথা, বাংলাদেশে সবকিছু আগের নিয়মে চলছে। সরকার নিজেই বলছে, করোনা এখন নিয়ন্ত্রণে। সেখানে কেন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। তাছাড়া সরকারি-বেসরকারি সব প্রতিষ্ঠানই খোলা রয়েছে।

ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুলহক নুর বলেছেন, আন্দোলনের ভয়ে সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে না। করোনা একটি অজুহাত মাত্র। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খুললেও বিশেষ ব্যবস্থায় পরীক্ষা চলছিল। কিন্তু শিক্ষা মন্ত্রণালয় আচমকা পরীক্ষা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়। এরপর থেকেই আন্দোলন চলছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে বুধবার সরকার দাবি মেনে নেয়। কিন্তু জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা এখনও স্থগিত রয়েছে। ২৪শে মে পরীক্ষা অনুষ্ঠানের নতুন সময়সূচি ঘোষণা করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। শিক্ষার্থীরা এই সময়সূচি প্রত্যাখ্যান করেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে পরীক্ষার দাবিতে সড়ক অবরোধ করেন রাজধানীর কলেজ অব হোম ইকোনমিক্সের শিক্ষার্থীরা। পুলিশ সেখানে ব্যাপক লাঠিচার্জ করেছে। এতে কয়েকজন শিক্ষার্থী আহত হন।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:55 0:00
সরাসরি লিংক

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা কার্যক্রম স্থগিতের প্রতিবাদে রাজধানীতে সমাবেশ করেন। পুলিশ তাদের হটিয়ে দেয়। কয়েকজনকে আটক করা হয়। এরপর শাহবাগ থানার সামনে জড়ো হয়ে শিক্ষার্থীরা তিনদিনের মধ্যে তাদের দাবি মেনে নেয়ার আল্টিমেটাম দেন।

সিলেটে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবিতে ও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় খোলার দাবিতে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। বিক্ষোভ হয়েছে কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে ।

ওদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন ৪১০ জন।

XS
SM
MD
LG