অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে জাতিসংঘে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব পেশ


রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে দ্রুত কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণের জন্য জাতিসংঘ এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহবান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার ৭২তম জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে ভাষণদান কালে এ আহবান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে বলেন, "আমার হৃদয় আজ দুঃখে ভারাক্রান্ত। কেননা আমার চোখে বারবার ভেসে উঠছে ক্ষুধার্ত, ভীত-সন্ত্রস্ত এবং নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের মুখচ্ছবি। তিনি বলেন, মাত্র কয়েকদিন আগেই আমার দেশে আশ্রয় নেওয়া কয়েক লাখ রোহিঙ্গার সঙ্গে দেখা করে এসেছি, যারা জাতিগত নিধনের শিকার হয়ে আজ নিজ দেশ থেকে জোরপূর্বক বিতাড়িত। অথচ তারা হাজার বছরেরও অধিক সময় যাবত মিয়ানমারে বসবাস করে আসছেন। তাদের দুঃখ-দুর্দশা আমি গভীরভাবে অনুধাবন করতে পারি।"

রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে প্রধানমন্ত্রী কিছু সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব পেশ করেন। প্রস্তাবগুলো হচ্ছে, অনতিবিলম্বে এবং চিরতরে মিয়ানমারে সহিংসতা ও ‘জাতিগত নিধন’ নিঃশর্তে বন্ধ করা, অনতিবিলম্বে মিয়ানমারে জাতিসংঘের মহাসচিবের নিজস্ব একটি অনুসন্ধানী দল প্রেরণ, জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সকল সাধারণ নাগরিকের নিরাপত্তা বিধান করা এবং এ লক্ষ্যে মিয়ানমারের অভ্যন্তরে জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে সুরক্ষা বলয় গড়ে তোলা, রাখাইন রাজ্য হতে জোরপূর্বক বিতাড়িত সকল রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে তাদের নিজ ঘরবাড়িতে প্রত্যাবর্তন ও পুনর্বাসন নিশ্চিত করা এবং কফি আনান কমিশনের সুপারিশমালার নিঃশর্ত, পূর্ণ এবং দ্রুত বাস্তবায়ন নিশ্চিত করা।

প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের সময় সেলিম হোসেন ছিলেন সেখানে। নিউইয়র্ক থেকে জানাচ্ছেন বিস্তারিত।

please wait

No media source currently available

0:00 0:06:40 0:00

XS
SM
MD
LG