অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থায়ন স্থগিত করার যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্ত সব দেশেই প্রতিকূল প্রভাব ফেলবে: চীন


চীন আজ বলেছে যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থায়ন স্থগিত করার ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্ত বিশ্বের সব দেশেই প্রতিকূল প্রভাব ফেলবে যখন গোটা বিশ্ব করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের একটি গুরুত্বপূর্ণ সময়ে রয়েছে।

গতকাল ট্রাম্পের এই ঘোষণার পর যেখানে তিনি বলেন যে, চীনে এই সংক্রমণের খবর সম্পর্কে WHO সঠিক ভাবে খতিয়ে দেখেনি, চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রক থেকে এই মন্তব্য আসলো।

জার্মানিও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষে যোগ দেয় এবং সে দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাস আজ বলেছেন যে কাউকে দোষ দেয়া কোন কাজের কাজ নয়। এক টুইট বার্তায় মাস বলেন আমাদেরকে COVID-19 এর বিরুদ্ধে একত্রিত হয়ে কাজ করতে হবে। সব চেয়ে ভাল বিনিয়োগ হলো জাতিসংঘকে শক্তিশালী করা বিশেষ করে তহবিল যাদের কম যেমন WHO কে শক্তিশালী করা যাতে করে এই রোগ পরীক্ষা এবং এর টীকা তৈরি ও বিতরণে তারা এগিয়ে আসতে পারে।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তির সংখ্যা এখন প্রায় কুড়ি লক্ষ কিন্তু অনেক এলাকাতেই পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না বলে মনে হচ্ছে এই সংখ্যা আরো বেশি হবে। আজ জন্স হপকিন্স ইউনিভার্সিটির পরিসংখ্যান অনুযায়ী বিশ্বব্যাপী এই ভাইরাসে মারা গেছে এক লক্ষ সাতাশ হাজারেরও বেশি লোক।

ফ্রান্স বলছে তাদের দেশে মৃত্যুর সংখ্যা পনেরো হাজার ছাড়িয়ে গেছে। যুক্তরাষ্ট্র ইটালি এবং স্পেনের পর মৃতের সংখ্যা হিসেবে ফ্রান্স হচ্ছে বিশ্বে চতুর্থ দেশ। ইটালি এবং স্পেন যদিও লক ডাউন খানিকটা শিথিল করেছে, ফ্রান্স লক ডাউনের মেয়াদ আরো বাড়িয়েছে।

কখন এবং কি ভাবে বিধিনিষেধ শিথির করা যায় সে নিয়ে বিশ্বব্যাপী সরকারগুলো আলোচনা করছে। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের গভর্ণর গ্যাভিন নিউসম বলেছেন যে, হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীর সংখ্যা অন্তত দু'সপ্তাহ ধরে কমতে থাকলে, আরো ব্যাপক ভাবে পরীক্ষার ব্যবস্থা করলে, স্বাস্থ্য পরিচর্যাকারীদের সুরক্ষা নিশ্চিত হলে তখনই কেবল তিনি লক ডাউন তুলে নেয়ার ব্যাপারটা বিবেচনা করবেন।

XS
SM
MD
LG