অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগানিস্তানে তালিবানের দখল অব্যাহত:যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ জেনারেলের উদ্বেগ


আফগানিস্তানে আমেরিকান বাহিনীর কমান্ডার মঙ্গলবার বলেন, ১১ই সেপ্টেম্বরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও নেটোর সৈন্যরা যখন সম্পুর্ণ ভাবে আফগানিস্তান থেকে সরে আসছে তার আগেই  তিনি সে দেশের ক্রম অবনতিশীল নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে গভীর ভাবে উদ্বিগ্ন। সৈন্য প্রত্যাহারের বিষয়টি যিনি তদারকি করছেন সেই জেনারেল অস্টিন স্কট মিলার এই মন্তব্যটি এমন এক সময়ে করলেন যখন সেই যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ জুড়ে  তালিবান বিদ্রোহী এবং যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনীর মধ্যে যুদ্ধক্ষেত্রে বৈরিতা বৃদ্ধি পেয়েছে

আফগানিস্তানে আমেরিকান বাহিনীর কমান্ডার মঙ্গলবার বলেন, ১১ই সেপ্টেম্বরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র ও নেটোর সৈন্যরা যখন সম্পুর্ণ ভাবে আফগানিস্তান থেকে সরে আসছে তার আগেই তিনি সে দেশের ক্রম অবনতিশীল নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে গভীর ভাবে উদ্বিগ্ন। সৈন্য প্রত্যাহারের বিষয়টি যিনি তদারকি করছেন সেই জেনারেল অস্টিন স্কট মিলার এই মন্তব্যটি এমন এক সময়ে করলেন যখন সেই যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ জুড়ে তালিবান বিদ্রোহী এবং যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত আফগানিস্তানের সরকারি বাহিনীর মধ্যে যুদ্ধক্ষেত্রে বৈরিতা বৃদ্ধি পেয়েছে ।

আফগান রাজধানী কাবুলে সংবাদদাতাদের সঙ্গে কথা বলার সময়ে জেনারেল নিরাপত্তা পরিস্থিতিকে “এখন খুব ভাল নয়,” বলে বর্ণনা করেন। তিনি বলেন বিদ্রোহীরা এখন ক্রমশই যে জায়গা দখল করে ফেলছে সেটা উদ্বেগের বিষয় এবং জোর করে গোটা দেশকে দখল করার প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে তালিবানকে সাবধান করে দেন। মিলার বলেন, “ সামরিক বাহিনীর ক্ষমতাদখল কারও স্বার্থের অনুকুলে নয়, আফগানিস্তানের জনগণের জন্যে তো নয়ই”।

তালিবান দাবি করছে ১ লা মে থেকে এ পর্যন্ত তারা আফগানিস্তানের ৪১৯টি জেলার মধ্যে ১০০ টি জেলা দখল করে নিয়েছে। ঐ তারিখ থেকেই যুক্তরাষ্ট্র ও জোট বাহিনীর অবশিষ্ট সৈন্যরা আনুষ্ঠানিক ভাবে আফগানিস্তান ত্যাগ শুরু করে। আফগান কর্মকর্তারা বলেছেন আফগান বাহিনী সাম্প্রতিক দিনগুলোতে কয়েকটি জেলা পুনরুদ্ধার করেছে এবং অন্যান্য স্থান থেকেও বিদ্রোহীদের বিতাড়নের সংকল্প প্রকাশ করেছেন। মিলার স্বীকার করেন যে কোন অঞ্চল হারানো, সামগ্রিক ভাবে দেশের নিরাপত্তার উপর প্রতিকূল প্রভাব ফেলবে”।

XS
SM
MD
LG