অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারত মহাসাগরে আক্রান্ত ইসরাইলের তেলবাহী জাহাজ এখন যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধ-জাহাজের পাহারায়


ফাইল ফটো : তেলবাহি জাহাজ মার্সার স্ট্রিট (এপি)

এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রের  কেন্দ্রীয় কমান্ড বলেছে নাবিকদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে আমেরিকান নৌবাহিনীর  বিষ্ফোরক বিশেষজ্ঞরা এখন ঐ ট্যাংকারে  রয়েছেন। কমান্ড আরও বলেছে যুক্তরাষ্ট্রের  নৌবাহিনী,“এই আক্রমণের বিষয়ে তদন্তে সহযোগিতার জন্য প্রস্তুত রয়েছে”। কমান্ড বলছে, “প্রাথমিক লক্ষণে মনে হচ্ছে এটি UAV ধরণের ড্রোন আক্রমণ ছিল”।

যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী শনিবার বলেছে, ইসরাইল পরিচালিত তেলবাহি ট্যাংকারটি ওমান উপকুলের অদূরে আক্রান্ত হবার পর এখন সেটিকে পাহারা দিয়ে নিয়ে যাচ্ছে দুটি আমেরিকান যুদ্ধ জাহাজ। ঐ আক্রমণে জাহাজটির দু জন কর্মী নিহত হন। মার্সার স্ট্রিট নামের লাইবেরিয়ার পতাকাবাহী এবং জাপানি মালিকানাধীন ঐ জাহাজটির ব্যবস্থাপনায় রয়েছে জোডিয়াক ম্যারিটাইম।

এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় কমান্ড বলেছে নাবিকদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে আমেরিকান নৌবাহিনীর বিষ্ফোরক বিশেষজ্ঞরা এখন ঐ ট্যাংকারে রয়েছেন। কমান্ড আরও বলেছে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনী,“এই আক্রমণের বিষয়ে তদন্তে সহযোগিতার জন্য প্রস্তুত রয়েছে”। কমান্ড বলছে, “প্রাথমিক লক্ষণে মনে হচ্ছে এটি UAV ধরণের ড্রোন আক্রমণ ছিল”।

এই আক্রমণের দায় এ পর্যন্ত যদিও কেউ দাবি করেনি, শুক্রবার ইসরাইলের পররাষ্ট্র মন্ত্রী এই ড্রোন হামলার জন্য ইরানকে অভিযুক্ত করেন। ইরান এখনও ইসরাইলের এই অভিযোগের কোন জবাব দেয়নি। কোম্পানিটি এখনও এই আক্রমণ সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানায়নি , কেবল এটুকু বলেছে যে এই ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত বেশ কয়েকটি জাহাজে হামলার জন্য যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল ইরানকে দায়ি করেছে। ওদিকে ইরানের পারমানবিক স্থাপনায় এবং সিরিয়ায় ইরানের সামরিক অবস্থানের উপর আক্রমণের জন্য ইসরাইলকে দায়ি করা হয়।

(এপি ও রয়টারের তথ্য সম্বলিত)

XS
SM
MD
LG