অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সিরিয়া থেকে সৈন্য ফেরত আনবে যুক্তরাষ্ট্র


সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে বিজয় ঘোষণার সুনির্দিষ্ট কারণ না জানিয়েই, হোয়াইট হাউজ ঐ যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্য ফেরত আনার ঘোষণা ও সিদ্ধান্তকে সমর্থন করছে।

এক টুইট বার্তায় প্রেসিডেন্ট লেখেন আমরা আইসিসকে পরাস্ত করেছি।

[[ https://twitter.com/realDonaldTrump/status/1075397797929775105 ]]

আকস্মিক এই ঘোষণা অনেকগুলো প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে আর তাতে হোয়াইট হাউজ এবং পেন্টাগন প্রেসিডেন্টের টুইট বার্তা সম্পর্কে ব্যাখ্যা দিচ্ছে তাদের বিবৃতিতে।

হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ স্যান্ডার্স বলেছেন, আমরা এই অভিযানের পরবর্তী পর্যায়ে যখন যাচ্ছি, তখন আমরা যুক্তরাষ্ট্রের সৈন্যদের স্বদেশে ফিরিয়ে আনছি। তিনি আরো বলেন যে, আই এস এর পরাজয় মানে এ নয় যে সিরিয়ায় যৌথ বাহিনীর সামরিক অভিযান বন্ধ হয়ে যাচ্ছে।

ঘন্টা কয়েক পরেই পেন্টাগনের মুখপাত্রী ড্যানা হোয়াইট এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, জোট বাহিনী আইসিস’র দখল করা এলাকা মুক্ত করেছে তবে আইসিসের বিরুদ্ধে অভিযান শেষ হয়নি এখনো।

বুধবার রাত নাগাদ ট্রাম্প আবার ভিডিও'র মাধ্যমে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেন। হোয়াইট হাউজের বাইরে দাঁড়িয়ে প্রেসিডেন্ট বলেন, “আমরা আইসিসের বিরুদ্ধে জয়লাভ করেছি। আমরা তাঁকে সম্পূর্ণ পর্যদূস্ত করেছি”। তারপর তিনি সৈন্যদের ফিরিয়ে আনার কথা বলেন।

হোয়াইট হাউজ কিংবা পেন্টাগন কেউই এ কথা জানায়নি যে সিরিয়া থেকে নিরাপদে এই সৈন্য প্রত্যাহারে কতদিন লাগবে। তারা নিরাপত্তার কারণে এ কথা জানায়নি। কেবল এটুকু জানিয়েছে যে এ ব্যাপারে পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের একজন কর্মকর্তাকে উদ্ধৃত করে রয়টার জানাচ্ছে যে, পররাষ্ট্র বিভাগ সিরিয়া থেকে সবাইকে সরিয়ে নিচ্ছে এবং সৈন্যদের ৬০ থেকে ১০০ দিনের মধ্যে প্রত্যাহার করে নেয়া হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের এই ঘোষণার মিশ্র প্রতিক্রিয়া হয়েছে, আন্তর্জাতিক বিশ্বে। বুধবার রাতে, আই এস এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে প্রধান মিত্র রাষ্ট্র সাবধানতা অবলম্বনের কথা বলেছে। ফ্রান্সও অনুরূপ সাবধান বাণী দিয়ে বলেছে আই এস সম্পূর্ণ নির্মূল হয়ে যায়নি।

XS
SM
MD
LG