অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে সরকারিভাবে যুক্তরাষ্ট্রের শরিক হওয়ার সপ্তাহ সাতেকের কিছুটা বেশি উত্তীর্ণ হয়েছিল যে সময়টায় সেই তখনই ১৯ শো বিয়াল্লিশ সালের পয়লা ফেব্রূয়ারী নিউইয়র্কের ছোট একটা স্টুডিও থেকে জার্মানীতে সম্প্রচারিত শর্ট ওয়েভ বেতার তরঙ্গে মিনিট পনেরোর একটি বার্তা ঘোষনা করা হয়েছিলো।

ঐ বার্তা প্রচারের আগে আমেরিকার দেশাত্মবোধক সঙ্গীত 'দ্য ব্যাটল হিম অফ দ্য রিপাবলিক' বাজানো হয়েছিল এবং তার পরপরই ঘোষক উইলিয়াম হার্লান হেইলের কণ্ঠে উচ্চারিত হয়েছিল, "আমেরিকার কন্ঠ নিসৃত বক্তব্য নিয়ে আসছি আমরা আপনাদের কাছে। এখন থেকে আজ এবং প্রতিদিনই আমেরিকা এবং যুদ্ধের খবর শোনাবো আমরা। তা সে শুভ সংবাদ হতে হতে পারে, হতে পারে দু:সংবাদও – তা সে যাই হোক সঠিক সংবাদই শোনাবো আমরা।" সেই থেকে আজ অবধি ঐ ধারাবাহিকতাই বজায় রেখে চলেছে ভয়েস অফ আমেরিকা, ওয়াশিংটনে অবস্থিত সদর দফতর সম্প্রচার ভবনে।

যুদ্ধ শেষ হওয়া নাগাদ ৪০টি ভাষায় অনুষ্ঠান প্রচার করছিল ভয়েস অফ আমেরিকা- সঙ্গীত, সংবাদ – সংবাদ ভাষ্য অন্তর্ভুক্ত এসব অনুষ্ঠানে। পরবর্তীতে ঐ সংখ্যাটাই বেড়ে দাঁড়ায় সাতচল্লিশে- বিভিন্ন আঙ্গিকে, মাধ্যমে- বেতার, টেলিভিশন, ওয়েব ও মোবাইলে। সেই ঘোষক হেইল যেভাবে আঙ্গিক প্রতিষ্ঠা করেছিলেন সেভাবে।

ভয়েস অফ আমেরিকার ৭৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে ভয়েস অফ আমেরিকার ডিরেক্টর এ্যামান্ডা বেনেট বললেন সেসব কথা। তিনি বললেন, নির্ভুল-বস্তুনিষ্ঠ সর্বার্থ সাধক সংবাদ প্রচারই লক্ষ আমাদের।

দুই হাজার ষোলোর সাপ্তাহিক দর্শক-শ্রোতার সংখ্যা নির্ধারনী খতিয়ানে দেখা গিয়েছে গড়ে প্রতি সপ্তাহে, সারা বিশ্বের ২৩ কোটি ষাইট লক্ষ দর্শক শ্রোতা বিভিন্ন মাধ্যমে আমাদের অনুষ্ঠানাদি দেখে থাকেন, শুনে থাকেন।

XS
SM
MD
LG