অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নারীদের অসম জীবন


womens day

আজকের নারীকণ্ঠের বিষয় হচ্ছে, নারীদের অসম জীবন।ঘরে বাইরে প্রতিনিয়ত নারীকে সংগ্রাম করতে হচ্ছে সম অধিকারের জন্য। পুরুষদের পাশাপাশি সমান তালে টাল মিলিয়ে কাজ করে গেলেও তারা এখনও পাননি যোগ্য মূল্যায়ন।

ওয়ার্ল্ড একনমিক ফোরামের এক পরিসংখানে বেরিয়ে এসেছে ২০২ বছর লেগে যাবে নারীদের পুরুষদের সমান বেতন পেতে। বর্তমানে পুরুষদের ১ ডলারের বিপরীতে নারীরা পাচ্ছেন ৫৪ সেন্ট। ১৮৭ টি দেশকে নিয়ে একটি পরিসংখ্যান করা হয়। পুরুষদের তুলনায় ভ্রমন, চাকরি, আয়, বিয়ে, সন্তান, চাকরি থেকে অবসর, এইসব বিষয়ে নারীরা সম অধিকার পাচ্ছেন কিনা বা ঠিক কতটা পিছিয়ে আছেন। দেখা গেছে পুরুষদের তুলনায় নারীরা এই বিষয়গুলোতে মাত্র এক তৃতীয়াংশ অধিকার পেয়ে থাকেন। বিশ্বে এখনো ২৭০ কোটি নারী তাদের পছন্দ মোতাবেক চাকরি পান না।

কিন্তু কি কারণে নারীরা পাচ্ছেন না তাদের ন্যায্য অধিকার? প্রশ্ন রেখেছিলাম কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতির অধ্যাপক ইশিতা মুখারজির কাছে ।

নারীরা তিনগুন কাজ বেশী করে থাকেন ঘরে কি বাইরে। ঘরের কাজকে এখনো এই নিত্য নতুন প্রযুক্তি, আধুনিক যুগেও কাজ হিসেবে না ধরে ধরা হয় কর্তব্য হিসেবে। কিন্তু একজন নারীর সেই ঘরের কাজের পরিশ্রম এবং একজন পুরুষের বাইরের কাজে যেই পরিশ্রম হয়, তা কিন্তু এক সমান। কোন কোন ক্ষেত্রে নারীদের ঘরের কাজে পরিশ্রম একটু বেশীই হয়। তার ওপর নারীদের বয়সের ব্যাপার তোঁ রয়েছেই। এখনো বিশ্বে প্রতিদিন ৩৩০০০ মেয়েরা বাল্য বিবাহের শিকার হচ্ছে। এ নিয়ে কথা বলছিলাম বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস ফাউনডেশানের নির্বাহী পরিচালক এডভোকেট এলিনা খানের সঙ্গে যিনি বহুদিন যাবত বাল্য-বিবাহ রোধ, নারী নির্যাতন, এবং সমঅধিকার নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।

ওয়ার্ল্ড একনমিক ফোরামের ঐ গবেষণা থেকে আরও জেনেছি, সড়ক দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে নারীরা ৪৭ শতাংশ ঝুঁকিতে থাকেন গুরুতর আহত হওয়ার ক্ষেত্রে কেননা একটি গাড়ি তৈরি করা হয় পুরুষদের কথা মাথায় রেখে।

দশ বছর আগেও কোনও দেশ নারীদের সম অধিকার নিয়ে এগিয়ে আসেনি। তবে বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনের দাবীর মুখে, বিভিন্ন আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্বের বেশ কিছু দেশ নারীদের সম অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে কাজ করছে। বিশ্বে ৬টি দেশ নারীদের সমঅধিকার দিচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে, বেলজিয়াম, ডেনমার্ক, ফ্রান্স, লাটভিয়া, লাকশেমবারগ এবং সুইডেন।

এই সম্পর্কে জানতে কথা বলেছি ফ্রান্সের ফউযিয়া আলমের সঙ্গে এবং সুইডেনের রুক্সানা ফেরদৌসের সঙ্গে।

আশা করা এই ছয়টি দেশকে অনুসরণ করবে পৃথিবীর অন্যান্য দেশগুলো এবং নারীদের দেবে যথাযথ মর্যাদা, অধিকার।

Unequal world for women
please wait
Embed

No media source currently available

0:00 0:09:22 0:00

XS
SM
MD
LG