অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

খালেদার জামিন স্থগিত প্রশ্নে কাল শুনানি


জিয়া এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় কারারুদ্ধ বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন স্থগিতের পক্ষে আদেশ দেননি চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। তবে তিনি বিষয়টি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেন। আগামীকাল বুধবার আপিল বিভাগে এ নিয়ে শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। সোমবার হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ থেকে খালেদা জিয়াকে চার মাসের অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেয়া হয়। এই জামিন আদেশের বিরোধিতা করে স্থগিতাদেশ চায় রাষ্ট্রপক্ষ ও দুর্নীতি দমন কমিশন। চেম্বার বিচারপতির সামনে জামিনের বিরোধিতা করে এটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, কুমিল্লার মামলায় জামিন না নিয়ে খালেদা জিয়ার কারামুক্তির কোনো অবকাশ নেই। খালেদার আইনজীবী এ, জে মোহাম্মদ আলী বলেন, হাইকোর্ট সকল নথিপত্র তলব করেই জামিন দিয়েছেন। সুতরাং জামিন স্থগিতের কোনো কারণ নেই। গত ৮ই ফেব্রুয়ারি থেকে খালেদা জিয়া কারাবন্দি রয়েছেন। তাকে একটি বিশেষ আদালত ৫ বছরের কারাদ- দিয়েছে। সোমবার হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ চারটি যুক্তিতে খালেদা জিয়াকে জামিন দেন। এর মধ্যে রয়েছে নিম্ন আদালত ৫ বছরের সাজা দিয়েছে। এই সাজায় হাইকোর্টে জামিনের নজির রয়েছে। বিচারিক আদালতের নথি পৌঁছেছে। কিন্তু আপিল শুনানির জন্য এখনও প্রস্তুত হয়নি। এ কারণে আসামি জামিনের সুবিধা পেতে পারেন। বিচারিক আদালতে মামলা চলাকালে খালেদা জামিনে ছিলেন। জামিনের অপব্যবহার করেননি তিনি। সর্বোপরি বয়স এবং বয়সজনিত শারীরিক অসুস্থতা বিবেচনায় নিয়ে তাকে জামিন দেয়া হয়।
ওদিকে জিয়া এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় কারাগারে আটক বেগম খালেদা জিয়াকে দেয়া জামিন আদেশের কপি হাইকোর্ট থেকে মঙ্গলবার সিএমএম আদালতে পাঠানো হয়েছে।

ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরীর রিপোর্ট।

XS
SM
MD
LG