অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিশ্বকাপ ফুটবল কিশোর তরুনদের উত্সাহ যোগায়

  • রোকেয়া হায়দার

বিশ্বকাপ ফুটবলের মাঠ

বিশ্বকাপ ফুটবলের মাঠ

দিগন্তহীন মাঠে পায়ে পায়ে বল গড়িযে চলে কিশোর বয়সীরা। খেলাধুলা শরীর ও মন দুই ভাল রাখে। পড়াশোনার সাথে সাথে খেলারও প্রয়োজন। আর একমাসের বিশ্বকাপ ফুটবলের এই সময়টিতে খেলার সঙ্গে খেলোয়াড়দের দিকেও সবার দৃষ্টি। এমনি এক ফুটবলার যুক্তরাষ্ট্রের ওগুচি ওনইয়েউ। আমেরিকান নাম নয়, ওগুচির মা বাবা এসেছিলেন নাইজেরিয়া থেকে এদেশে পড়াশোনা করতে। ওগুচি হাইস্কুলে পড়ার সময়েই ফুটবল খেলা শুরু করে। তারপর ২ বছর কলেজে পড়াশোনার পর, ইওরোপে গিয়ে ফুটবল লীগে যোগ দেয়। বেলিজিয়ামের লীগে খেলেছে। গত বছর কনফেডারেশ কাপ ফুটবলে খুব চমত্কার খেলেছে। কিন্তু দূর্ভাগ্য, চ্যাম্পিয়ান্স লীগের একটি খেলার পরপরই হাঁটুর জখমের কারণে আর খেলা সম্ভব হয়নি। অনেকে তো সন্দেহ প্রকাশ করলো – ওগুচি হয়তো বিশ্বকাপে খেলতে পারবে না। কিন্তু তার দৃঢ় বিশ্বাস ছিল, বিশ্বকাপে খেলতে যাবেই। তার মা বাবার দেশ নাইজেরিয়া, আফ্রিকা মহাদেশে প্রথম বিশ্বকাপ ফুটবল কোনভাবেই মিস করা যাবে না। সেই স্বপ্ন সত্যি হয়েছে। এটাই তার জীবনের সবচাইতে বড় সাফল্য।

XS
SM
MD
LG